ঢাকা, সোমবার, ১৬ মে ২০২২ | ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ | ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩

সুগন্ধা নদীতে লঞ্চে আগুন : নিহতদের পরিবার পাবে দেড় লাখ টাকা

সুগন্ধা নদীতে লঞ্চে আগুন : নিহতদের পরিবার পাবে দেড় লাখ টাকা

ছবি : সংগৃহীত

ঢাকা থেকে বরগুনার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া লঞ্চ অভিযান-১০ এ অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া প্রত্যেক পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও বিআইডব্লিউটিএ। এছাড়া অগ্নিদগ্ধ ও আহতদের সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দেওয়া হবে।

আজ শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডে আহতদের দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই ঘটনায় ইতিমধ্যে যারা মারা গেছেন, তাদের পরিবারকে আমরা দেড় লাখ টাকা করে দেব। যারা আহত আছেন তাদেরকে সরকারের পক্ষ থেকে সবধরনের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। বরিশাল মেডিকেলে আজ বিকেলের মধ্যে একটি বার্ন ইউনিট আসছে। যারা অতিরিক্তি দগ্ধ তাদেরকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডে আমরা মন্ত্রণালয় থেকে তদন্ত কমিটি করেছি। তিন কার্যদিবেসের মধ্যে তদন্ত টিম রিপোর্ট জমা দেবে। তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত আমি বলব না যে, এটা রাজনৈতিক নাশকতা কিংবা দেশবিরোধী কোনো চক্রের কাজ। যান্ত্রিক কোনো ত্রুটির কারণে এই ঘটনা ঘটেছে কি না সেটাও তদন্তের মধ্য দিয়ে বেরিয়ে আসবে।

এর আগে দুপর ১টার দিকে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসেন। তখন তার সঙ্গে ছিলেন হাসপাতালের পরিচালক এইচ এম সাইফুল ইসলাম, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস প্রমুখ।

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে ঢাকা থেকে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ লঞ্চে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে আগুনের ঘটনা ঘটে। এতে এখন পর্যন্ত ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে। বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ১২৪ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে। নিখোঁজ রয়েছেন অনেকে।

ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের সঙ্গে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন পিরোজপুর, বরিশাল, বরগুনা ও ঝালকাঠির কোস্টগার্ড সদস্যরা।

এমএস