ঢাকা, রবিবার, ৩ জুলাই ২০২২ | ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ | ৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

নদিমপুর প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ-সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্যোগে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী

নদিমপুর প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ-সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্যোগে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী

সংগৃহীত

সংযুক্ত আরব আমিরাত দুবাই ড্রাগন মার্ট সংলগ্ন ইন্টারন্যাশনাল সিটি রাসিয়াস্থ আল মদিনা রেস্টুরেন্ট হল রুম ময়দানে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উদযাপন উপলক্ষে চট্টগ্রাম রাউজান উপজেলার নদিমপুর প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ-সংযুক্ত আরব আমিরাত এর উদ্যোগে শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়।

নদিমপুর প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ-সংযুক্ত আরব আমিরাতের অন্যতম উদ্যোক্তা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও দুবাই বিজনেস ফোরামের অন্যতম সদস্য আলহাজ্ব মুহাম্মদ হাবিব উল্ল্যাহ-এর সভাপতিত্বে ও নদিমপুর প্রবাসী কল্যাণ পরিষদ-সংযুক্ত আরব আমিরাত সিনিয়র সদস্য এম, শাহেদ সরওয়ার এর সঞ্চালনায় মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন দুবাইয়ে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব মৌলানা মুহাম্মদ ফজলুল আজিম।

মোহাম্মদ তামিম আল মারুফের পবিত্র কুরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে মাহফিল শুরু হয়। পবিত্র হামদ ও নাতে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পেশ করেন মোহাম্মদ হিশাম আল মারুফ। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কাজী মুহাম্মদ সোহেল। মাহফিলে আলোচনায় অংশ নেন মোহাম্মদ আজম, মোহাম্মদ রেজাউল করিম, মোহাম্মদ হাসান, মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন পলাশ, হাফেজ মোহাম্মদ ফারুক।

সংযুক্ত আরব আমিরাত নদিমপুর প্রবাসীদের মিলন মেলায় এতে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ আজিজ, নুর উদ্দিন খান বাবর, মহিম উদ্দিন, আলতাফ উদ্দিন জনি, নাছির উদ্দিন, আশরাফ খান, আব্বাস উদ্দিন, বেলাল উদ্দিন, মোজাহের, আজাদ, বাচ্চু, ইছা চৌধুরী, মুছা, আলম, কাজী জনি, জাহেদ, মোরশেদ ও আব্দুল করিম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ১২ রবিউল আউয়ালকে মুসলিমসহ সমগ্র দুনিয়ার জন্য একটি অশেষ পুণ্যময় ও আশীর্বাদধন্য দিন। আরব জাহান যখন পৌত্তলিকতার অন্ধকারে ডুবে গিয়েছিল, তখন প্রিয় নবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সমস্ত জগতের জন্য রহমতস্বরূপ পাঠিয়েছিলেন মহান আল্লাহ রাব্বুল ইজ্জত। হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নবুয়তপ্রাপ্তির আগেই ‘আল-আমিন’ নামে খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। তাঁর এই খ্যাতি ছিল ন্যায়নিষ্ঠা, সততা ও সত্যবাদিতার ফল। তাঁর মধ্যে সম্মিলন ঘটেছিল সমুদয় মানবীয় সদ্‌গুণের: করুণা, ক্ষমাশীলতা, বিনয়, সহিষ্ণুতা, সহমর্মিতা, শান্তিবাদিতা। আধ্যাত্মিকতার পাশাপাশি কর্মময়তাও ছিল তাঁর জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। সর্বশেষ ও সর্বশ্রেষ্ঠ নবী হিসেবে বিশ্বমানবতার মুক্তি ও কল্যাণ প্রতিষ্ঠা ছিল তাঁর ব্রত। ধর্ম-বর্ণ-সম্প্রদায়নির্বিশেষে সর্বশ্রেষ্ঠ মানবিক গুণাবলির আল্লাহর হাবীব হিসেবে তিনি সব কালে, সব দেশেই স্বীকৃত।

অনুষ্ঠানের সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ হাবিব উল্ল্যাহ সমাপনী বক্তব্য শেষে মিলাদ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন আলহাজ্ব মৌলানা মুহাম্মদ ফজলুল আজিম। চলমান করোনা পরিস্থিতি থেকে বিশ্ববাসীর উত্তরণ ও সকলের সুস্থতা কামনায় মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

এমএস