ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১ |

 
 
 
 

বালু উত্তোলনে ব্যবহৃত চারটি মেশিন পুড়িয়ে দিলো ভ্রাম্যমাণ আদালত

গ্লোবালটিভিবিডি ২:৪৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২১

ছবি- সংগৃহীত

শফিকুল ইসলাম, নরসিংদী : নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার দুলালপুর ও মাছিমপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে অবৈধ বালু উত্তোলনে ব্যবহৃত মেশিন ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি জব্দ করে আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল বিকালে নরসিংদীর জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইনের নির্দেশনায় উপজেলার দুলালপুর ও মাছিমপুর ইউনিয়নের ৩টি স্থানে অবৈধ বালু উত্তোলন রোধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাবিরুল ইসলাম খান ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্যামল চন্দ্র বসাক।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ব্যবহৃত ৪টি মেশিন ও উক্ত কাজে ব্যবহৃত অন্যান্য সরঞ্জামাদি জব্দপূর্বক ধ্বংস করে এবং উত্তোলিত জব্দকৃত বালু ভ্রাম্যামাণ আদালতের স্থানেই তাৎক্ষণিক নিলামের মাধ্যমে বিক্রি করে দেয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা কালে শিবপুর মডেল থানা পুলিশের একটি টিম সহযোগিতা করেন।

সূত্র জানায়, উপজেলার দুলালপুর ও মাছিমপুর ইউনিয়নের মির্জাকান্দী, চন্ডিবর্দী, দত্তেরগাঁও, দুলালপুর গ্রামসহ দুইটি ইউনিয়নজুড়ে বছরের পর বছর ধরে অবৈধভাবে অবাধে বালু উত্তোলনের ফলে বিলীন হচ্ছে ঘর-বাড়ি, গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট, ফসলি জমি ও কবরস্থান। আগে অবৈধ বালু উত্তোলন করলেও সাম্প্রতিককালে উপজেলা প্রশাসন থেকে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। কিন্তু এরপরও রাতের আঁধারে একটি সিন্ডিকেট বালু উত্তোলন করে এবং বিক্রি করে কোটিপতি বনে গেছেন। এই সিন্ডিকেট এতই শক্তিশালী যে, স্থানীয়রা তাদের বিরুদ্ধে কোনো প্রতিবাদ করতে পারেননি।

ভূমি আইনের কোন তোয়াক্কা না করে উপজেলার দুলালপুর ও মাছিমপুর ইউনিয়নে ফসলী জমি থেকে অবৈধভাবে এই বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে একটি প্রভাবশালী মহল। ইউএনও মোহাম্মদ কাবিরুল ইসলাম খান বলেন, অবৈধ বালু উত্তোলন রোধে উপজেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কোন অবস্থাতেই অবৈধ বালু উত্তোলন করতে দেয়া হবে না। আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম চলমান থাকবে।

উল্লেখ্য, উপজেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগকে স্বাগত ও সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকার ভুক্তভোগীরা।

আরকে/জেইউ 


oranjee