ঢাকা, শনিবার, ৮ আগস্ট ২০২০ |

 
 
 
 

বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনের ভোটগ্রহণ চলছে

গ্লোবালটিভিবিডি ১২:৫২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

নভেল করোনাভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) সকাল নয়টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। চলবে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এর আগে মাস্ক না পরলে কাউকেই ভোট দিতে দেবে না বলে জানিয়েছিলেন ইসি সচিব মো. আলমগীর।

নির্বাচন উপলক্ষে ইতোমধ্যে ভোটের এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। যান চলাচলের ওপরও আরোপ করা হয় বিধি-নিষেধ। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান নিয়েছেন।

ভোটের কারণে করোনা সংক্রমণ বাড়ার শঙ্কায় কমিশনের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থান ইতোমধ্যে ভোট বর্জন করেছে বিএনপি। তবে বিএনপির প্রার্থীদ্বয়ের মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ায় এবং তারা প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় শেষে নির্বাচন বর্জন করায় ব্যালট পেপারে তাদের নাম ও প্রতীক রাখা হয়েছে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে আগেই এ নির্বাচন পিছিয়ে দেয়ার দাবি ছিল দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপির। তারা নির্বাচন বর্জন করার ঘোষণাও দিয়েছে।

অন্যদিকে, সংসদের বিরোধীদল জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী ১৪ জুলাই হওয়ায় এদিনটির পরিবর্তে যেকোন দিন ভোট গ্রহণের অনুরোধ জানিয়েছে।

তবে ইসি বলেছে, নির্বাচন পেছানোর কোনো সুযোগ তাদের নেই। সার্বিক প্রস্তুতি বিষয়ে ইসির যুগ্মসচিব (জনসংযোগ) এসএম আশাদুজ্জামান জানান, নির্বাচনী স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোটারদের ভোট প্রদান এবং নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে দায়িত্ব পালনে আহ্বান জানানো হয়েছে। আসন দু'টির উপনির্বাচন সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠানের জন্য নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান।

নির্বাচন উপলক্ষে সোমবার দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় যান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। এছাড়া ১২ জুলাই দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ১৫ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত সব ধরনের মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ থাকবে।

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, খিলাফত আন্দোলন, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টি ও একজন স্বতন্ত্রসহ মোট ৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অংশগ্রহণ করছেন। এ আসনের মোট ভোটার তিন লাখ ৩০ হাজার ৯১৮ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ১২৩ এবং ভোট কক্ষ ৭১০টি।

অন্যদিকে, যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ আসনে মোট ভোটার দুই লাখ ৪ হাজার ৩৯৭ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৭৯টি ভোট কক্ষ ৩৭৪ টি।

যশোর-৬ আসনে সরকারি দলের সংসদ সদস্য ইসমাত আরা সাদেকের মৃত্যুতে গত ২১ জানুয়ারি এ আসনটি শূন্য হয়। একইভাবে আওয়ামী লীগের আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে গত ১৮ জানুয়ারি বগুড়া-১ আসন শূন্য হয়।

এমএস/জেইউ


oranjee