ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ মার্চ ২০২১ |

 
 
 
 

ক্যারিবীয়দের হারিয়ে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ

গ্লোবালটিভিবিডি ৬:০৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১

ছবি সংগৃহীত

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও বড় জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। 

আজ শুক্রবার সাত উইকেটের জয় তুলে নেয় তামিম ইকবালের দল। এর আগে বুধবার মিরপুরে প্রথম ওয়ানডেতে ১২২ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পর সহজ জয় তুলে নেয় টাইগাররা। আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস শেষ হয় ১৪৮ রানে। আর দ্বিতীয় দিনেও সহজ জয় তুলে নিয়ে সিরিজ জয় নিশ্চিত করল বাংলাদেশ। এই জয় নিয়ে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক সিরিজ জয়ের কীর্তি গড়ল তারা।

এদিকে, করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘ বিরতির পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই ২-০ তে সিরিজ জয় নিশ্চিত করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়, কোচ ও ম্যানেজারসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১৪৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৩০ রানের জুটি গড়ে সাজঘরে ফেরেন লিটন (২২)। তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৭৭ রানে আউট নাজমুল হোসেন শান্ত। প্রথম ম্যাচে ১ রানে আউট হওয়া শান্ত শুক্রবার ফেরেন মাত্র ১৭ রানে। আগের ম্যাচে আকিল হোসেনের স্পিনের শিকার হওয়া শান্ত শুক্রবার ফেরেন জেসন মোহাম্মদের অফ স্পিনে।

এর পর ফিফটি করে আলগা শট খেলতে গিয়ে আউট হন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল। উইকেট দিয়ে এলেন রেমন রিফারকে। বাঁহাতি পেসার রিফারের বলটি ছিল অফ স্টাম্পের বেশ বাইরে। তামিম খেলেন কাট শট। একটু ভেতরে ঢুকে ও বাড়তি লাফিয়ে তামিমের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে বল যায় কিপারের গ্লাভসে। ৭৬ বলে ৫০ রান করে ফিরলেন তামিম।

টাইগার অধিনায়ক বিদায় নেয়ার পর দুই প্রান্তে ব্যাট হাতে ক্যারিবীয় বোলারদের মোকাবেলা করতে থাকে অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। সাকিব একটু সাবধানেই ব্যাট চালিয়ে রানের চাকা ঘুরাতে থাকে। জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছাতে খুব বেশি চিন্তা করতে হয়নি দুই ব্যাটসম্যানের। ১০০ বল হাতে রেখেই জয়ের কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পোঁছে যায় তারা। ৫০ বলে ৪৩ রান সংগ্রহ করেন সাকিব। আর মুশফিক সংগ্রহ করেন ২৫ বলে নয় রান।

এর আগে মিরপুরের শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে উইন্ডিজ। ওপেনার সুনীল আমব্রিসকে (৬) দিয়ে শুরুটা করেন মোস্তাফিজুর রহমান। এরপর জোড়া আঘাত হানেন মিরাজ। ওয়ানডেতে অভিষেক হওয়া ওপেনার কিয়র্ন ওটলেকে (২৪) তামিম ইকবালের হাতে ক্যাচ বানানোর পর উইকেটরক্ষক জশুয়া ডি সিলভাকে (৫) বোল্ড করেন তিনি।

নিজের প্রথম ওভার করতে এসেই আন্দ্রে ম্যাকার্থিকে (৩) বোল্ড করেন সাকিব। আগের ম্যাচে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন তিনি। সাকিব নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদকে (১১) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে।

মোহাম্মদের বিদায়ের আগে উইন্ডিজকে আরও বিপদের মুখে ঠেলে রানের খাতা খোলার আগে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন আগের ম্যাচে দলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক কাইল মায়ার্স। তবে চাপের মুখে পাল্টা আক্রমণ চালানোর চেষ্টা করেন এনক্রুমাহ বোনার (২০)। অবশ্য তাকে বোল্ড করে বেশি সুযোগ দেননি হাসান মাহমুদ। আটে ব্যাটিংয়ে নেমে জোসেফকে নিয়ে ধীর-স্থির ব্যাটিংয়ে দলকে তিন অঙ্কের ঘরে নিয়ে যান পাওয়েল।

জোসেফ ফেরার পর শেষ ব্যাটসম্যান আকিল হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে ফিফটির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন পাওয়েল। তবে নিজের শেষ ওভার করতে এসে চতুর্থ বলেই পাওয়েলকে থামান মিরাজ। আকিল অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৭ রানে। শেষ পর্যন্ত উইন্ডিজ থামে ৪৩.৪ ওভারে ১৪৮ রানে।

৯.৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে দলীয় সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নিয়েছেন মিরাজ। যা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে সেরা বোলিং ফিগার। ২টি করে উইকেট ভাগাভাগি করেছেন সাকিব ও মোস্তাফিজ। বাকি উইকেট হাসান মাহমুদের।


oranjee