ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০ | ২৫ আষাঢ় ১৪২৭

 
 
 
 

কেরালায় হাতি হত্যা: অপরাধীদের শাস্তি চাইলেন রুবেল

গ্লোবালটিভিবিডি ১২:১৩ অপরাহ্ণ, জুন ০৪, ২০২০

ছবি- সংগৃহীত

পানিতে দাঁড়িয়ে আছে একটি হাতি। সেটি ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। খাবারের সন্ধানে জঙ্গল থেকে বেরিয়ে কাছের একটি গ্রামে এসেছিল। তাকে আনারস খেতে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু ফলটি ছিল বারুদে ভরা।

ফলে হাতিটির মুখের ভেতরেই বারুদের বিস্ফোরণ হয়। এতে হাতিটির চোয়াল ও দাঁত ভেঙে যায়। তার মুখ ক্ষত-বিক্ষত হয়ে যায়। এতে কিছুই খেতে পারছিল না সেটি। ব্যথার যন্ত্রণা নিয়ে গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছিল।

একপর্যায়ে যন্ত্রণার উপশম পেতে পানিতে ছুটে যায় হাতিটি। স্থানীয় ভেলিয়ার নদীতে দাঁড়িয়ে থাকে সেটি। মাঝ নদীতে টানা তিন দিন দাঁড়িয়ে থেকেই একসময় মারা যায় ওই হাতি। আর মৃত্যু হয় তার অনাগত বাচ্চাটিরও।

ভারতের উত্তর কেরালার মালাপ্পুরমে এ নৃশংস ঘটনা ঘটেছে। এমন নিষ্ঠুরভাবে হাতিটিকে হত্যা করায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে তা বিদেশেও বিতর্কের জন্ম দিয়েছে।

সর্বনাশা করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে প্রাণীটিকে এ রকম নির্মমভাবে মেরে ফেলায় প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন সোশ্যাল অ্যাক্টিভিস্টরা। তাদেরই একজন বাংলাদেশি তারকা পেসার রুবেল হোসেন।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে তিনি লিখেছেন– বেশি কিছু লেখার ক্ষমতা নেই..., কীই বা বলব! ১৫ বছরের অন্তঃসত্ত্বা হাতিটিকে কেরালার মানুষ যেভাবে হত্যা করেছে তাতে বলা কি কিছু সাজে? আনারসের মধ্যে বাজি পটকা ভরে নৃশংস হত্যা! আর অবলা হাতিটি নিজের বাচ্চাকে বাঁচাতে পুকুরে (নদী) গেল, যাতে পেটের বাচ্চাটার ক্ষতি না হয়... যতই হোক, মা তো...। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।

টাইগার ক্রিকেটার লেখেন, কেরালার মানুষ কতটা শিক্ষিত-অশিক্ষিত সে প্রশ্ন থাক! প্রশ্নটা উঠুক মানুষের মনুষ্যত্ব নিয়ে। করোনার ভ্যাকসিন হয়তো তৈরি হবে কোনো একদিন। জীবনযুদ্ধে মানুষ আরও একধাপ এগিয়ে যাবে আবার কিন্তু মানবিকতার দিক থেকে আমরা একদম তলানিতে পৌঁছে যাব না তো? এ ধরনের নিকৃষ্টতম বীভৎসতা কেবল মানুষের পক্ষেই দেখানো সম্ভব। এসব ইতরের শাস্তির আওতায় আনুন, না হলে জনগণের সামনে ছেড়ে দিন। তারপর...।

তিনি আরও লেখেন– এরপরেও মানুষ নিজেদের পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জীব বলে দাবি করেন? আমরা এ ধরা ডিজার্ভ করি না। যে অন্যায়, যে অবিচার ক্রমশ মানুষ করে যাচ্ছে, তার শাস্তি অবশ্যই পাবে। প্রকৃতি কারও ঋণ রাখে না। সৃষ্টিকর্তা সব সুদে-আসলে ফেরত দিয়ে দেয়। আজ যে ধরণীর এ অবস্থা, সেটির জন্য মানুষই দায়ী। মানুষের বিনাশ অনিবার্য। মানুষ তুই মানুষ হবি কবে...?

আরকে/জেইউ

 


oranjee