ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০ |৯ মাঘ ১৪২৬

 
 
 
 

এসএ গেমসের ৮ম দিনে ৭ সোনা বাংলাদেশের

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৯, ২০১৯

ফাইল ছবি

বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে এক নতুন ইতিহাস। একদিনে সাত সোনা জয়। শুরুটা করেছেন তীরন্দাজরা। শেষটাও তারাই।

রবিবার পোখারায় সোনার ফসল ফলালেন লাল-সবুজের ক্রীড়াবিদরা। আটদিন শেষে গেমসে বাংলাদেশের মোট স্বর্ণপদক এখন ১৪টি।

একদিনে কোনো আন্তর্জাতিক গেমসে বাংলাদেশের সাত স্বর্ণজয়ের রেকর্ড অতীতে নেই। ২০১০ এ ঢাকা এসএ গেমসে একদিনে পাঁচটি স্বর্ণপদক জিতেছিলেন লাল-সবুজের ক্রীড়াবিদরা।

এসএ গেমসের ইতিহাসে এবারই প্রথম সোনালি হাসি রোমান সানা ও মোহাম্মদ তামিমুলদের। অতীতে এই ডিসিপ্লিনে স্বর্ণ জিততে পারেনি বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের নতুন ইতিহাস সৃষ্টি হলো। রবিবার  সকালে পোখারার রঙ্গশালায় পুরুষ দলগত রিকার্ভ ইভেন্টে রোমান সানা, তামিমুল ইসলাম ও হাকিম আহমেদ রুবেল স্বর্ণ জয়ের মধ্য দিয়ে ইতিহাসে নতুন যাত্রা শুরু করেন। 

সকালে ছিল রিকার্ভ পুরুষ, নারী দলগত ও মিশ্র দলগত এবং বিকেলে কম্পাউন্ড পুরুষ, নারী দলগত ও মিশ্র দলগত- এই ছয় ইভেন্টের খেলা। সব কটিতেই লক্ষ্যভেদ করেছেন বাংলাদেশের তীরন্দাজরা।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় অ্যাথলেট হিসেবে সরাসরি অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করা রোমান সানার হাত ধরে আসে দিনের প্রথম স্বর্ণপদক। সকালে রিকার্ভ দলগত ইভেন্টে তীর-ধনুক হাতে নিয়ে মাঠে নামেন রোমান, মোহাম্মদ তামিমুল ও হাকিম আহমেদ রুবেল। তারা ৫-৩ সেট পয়েন্টে হারান শ্রীলংকার রবিন কাভিশ, সজীব ডি সিলভা ও সান্দান কুমার হেরাথকে।

এরপরই রিকার্ভ নারী দলগত ইভেন্টের ফাইনালে বিউটি রায়, ইতি খাতুন ও মেহনাজ আক্তার মনিরা ৬-০ সেট পয়েন্টে ভুটানকে হারিয়ে দিনের দ্বিতীয় স্বর্ণ জেতেন। ইতি খাতুনকে নিয়ে রিকার্ভ মিশ্র দলগত ইভেন্টে ৬-২ সেট পয়েন্টে ভুটানকে হারিয়ে দেশকে আরেকটি স্বর্ণ এনে দেন রোমান সানা।

দুপুরের পর আসে কম্পাউন্ড ইভেন্ট থেকে আরও তিনটি সোনা। কম্পাউন্ড পুরুষ দলগত ইভেন্টের ফাইনালে সোহেল রানা, অসীম কুমার দাস ও মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান ২২৫-২১৪ স্কোরের ব্যবধানে ভুটানকে হারিয়ে স্বর্ণ জেতেন।

নারী দলগত ইভেন্টে সুস্মিতা বণিক, সুমা বিশ্বাস ও শ্যামলী রায় জুটি ২২৬-২১৫ স্কোরে শ্রীলংকাকে হারান। আর দিনের শেষ স্বর্ণটি আসে কম্পাউন্ড মিশ্র দলগত ইভেন্ট থেকে। সোহেল রানা ও সুস্মিতা বণিক জুটি ১৪৮-১৪০ স্কোরের ব্যবধানে নেপালের তীরন্দাজদেরকে হারিয়ে সোনালি হাসি হাসেন।

এদিকে আরচারির পাশাপাশি সোনালি দিন কাটিয়েছেন নারী ক্রিকেটাররাও। শ্রীলংকার বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফাইনালে নাটকীয়ভাবে দুই রানে জিতে আরেকটি ইতিহাস তৈরি করেন সালমা খাতুন ও জাহানারা আলমরা।

দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিকখ্যাত এসএ গেমসে এবারই প্রথম মহিলা ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। অভিষেক আসরেই বাংলাদেশের নাম প্রথম চ্যাম্পিয়ন হিসেবে থাকবে ইতিহাসে।

গেমস শেষ হতে বাকি আর দুদিন। দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ স্বর্ণপদক ১৮টি। ২০১০ এ ঢাকা এসএ গেমসে বাংলাদেশ এই কৃতিত্ব অর্জন করেছিল। সেই রেকর্ড স্পর্শ করতে বাকি আর মাত্র চারটি স্বর্ণ জয়ের।

আজ পোখারায় আরচারির ব্যক্তিগত চারটি ইভেন্টের স্বর্ণের লড়াই রয়েছে। আর কাঠমান্ডুতে থাকছে পুরুষ ক্রিকেটের ফাইনাল।

এএইচ/ জে ইউ


oranjee