ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৩ মাঘ ১৪২৯ | ৫ রজব ১৪৪৪

ভোলার মদনপুরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভূমি দখলের অভিযোগ

ভোলার মদনপুরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভূমি দখলের অভিযোগ

ছবি: গ্লোবাল টিভি

অনিক আহাম্মদ, ভোলা: ভোলার দৌলতখান উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের চর বৈরাগিয়ায় নাছির উদ্দিন নান্নু চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চর বৈরাগীয়া শিকস্তী ভূমি মালিক সমিতি মানববন্ধন করেছে।

মঙ্গলবার চর বৈরাগিয়ায় এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে চর বৈরাগিয়ার জমির প্রকৃত মালিকরা অংশগ্রহণ করেন। অংশগ্রহণকারী জমির মালিকরা অভিযোগ করে বলেন, চাঁদাবাজ ও জাল দলিলকারী চক্র, সন্ত্রাসী, মামলাবাজ মদনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন নান্নু ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী দীর্ঘদিন যাবত জোরপূর্বক আমাদের মালিকানা জমি দখল করে আছে। আমাদের জমিতে আমাদের চাষাবাদ করতে দিচ্ছে না। 

মানববন্ধনের লিখিত অভিযোগে চর বৈরাগীয়া শিকস্তী ভূমি মালিক সমিতির সদস্য মাহামুদুল হক বলেন, দৌলতখান উপজেলাধীন মদনপুর ইউনিয়নের চর বৈরাগিয়া মৌজার প্রায় ৪১০০ একর নাল জমি আমিসহ আরো অনেক লোকজন রেকর্ডীয় মালিক নিযুক্ত আছি। তাহাতে উক্ত জমি বর্তমানে নতুন চর জাগিয়াছে দেখিয়া নাছির উদ্দিন নান্নু চেয়ারম্যান ও তার পালিত সন্ত্রাসী বেলায়েত এর লোভের কারণ জন্মে। নান্নু উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি। তারা জনবলে ও অর্থবলে বলিয়ান বিধায় আমাদের উক্ত রেকর্ডীয় জমি দীর্ঘ দিন যাবৎ জোর পূর্বক ভোগ দখল করার পাঁয়তারা করিতেছে। আমাদের রেকর্ডীয় জমি হইতে আমাদের বাসস্থান দূরবর্তী হওয়ায় এবং তাদের নিকটবর্তী হওয়ায় তাহাদের প্রভাবে আমরা আমাদের জমিতে বর্তমানে ফসলাদি রোপণ করতে পারি না। 

তারা জেলা প্রশাসকের কাছে আইনী সহায়তাসহ রেকর্ডীয় জমি প্রকৃত মালিককে বুঝিয়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ জানান।

উল্লেখ্য, এ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ প্রদান করা হয়। 

মানববন্ধনে অংশ নেয়া আলাউদ্দিন তালুকদার বলেন, আমরা ১৫ গন্ডা জমির মালিক অথচ নান্নু চেয়ারম্যান ও বেলায়েত আমাকে কোন জমি চাষ করতে দিচ্ছে না। পেটের দায় বাধ্য হয়ে বেলায়েতকে ৬০০০ হাজার টাকা দিয়ে ৪ একর জমি চাষ করেছি। 

ভুক্তভোগী আব্দুল হক ফরাজী (৭৫) বলেন, এ চরে আমাদের ১০ কানি জমির রয়েছে, অথচ এই ভূমিদস্যু নান্নু চেয়ারম্যানে বেলায়াত বাহিনী দিয়ে চরে এরকম সন্ত্রাস কায়েম করেছে যে আমি ১ গন্ডা জমিও চাষ করতে পারছি না।

আরেক ভুক্তভোগী মামুন (৩০) অভিযোগ করে বলেন, নান্নু চেয়ারম্যান ও বেলায়েত আমাকে ১০ একর জমি দেবে বলে ৩ লক্ষ টাকা নেয়, অথচ আজ পর্যন্ত আমাকে কোন জমি তো দেয়নি। আমার টাকাও ফেরত দিচ্ছে না। আমি টাকা চাইতে গেলে সন্ত্রাসী বেলায়েত আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

এছাড়াও নাসির উদ্দিন নান্নুর চেয়ারম্যান, বেলায়েত ও সিরাজের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, চর বৈরাগিয়ায় আশ্রায়ণ প্রকল্পের ঘর দেয়ার নামে ৩ হাজার, ৪ হাজার, ৫ হাজার  ও ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত নেয়।

এক ভুক্তভোগী রাবেয়া বেগম (৩০) বলেন, বেলায়েত আমার কাছ থেকে এ ঘরের জন্য ৩ হাজার টাকা নেয়। 

একই অভিযোগ করে কোভিদ হোসেন বলেন, একটি ঘরের জন্য আমাকে পাঁচ হাজার টাকা দেয়া লাগছে। 

দুলাল হাওলাদার (৫১) বলেন, ২টি ঘরের জন্য আমার কাছ থেকে বেলায়েত ১৫ হাজার টাকা নেয়। 

এই বিষয় চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন নান্নুর সাথে যোগাযোগ করলে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি। 

এএইচ