ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৩ মাঘ ১৪২৯ | ৫ রজব ১৪৪৪

কেরানীগঞ্জে বাক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ শেষে পুড়িয়ে হত্যা

কেরানীগঞ্জে বাক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ শেষে পুড়িয়ে হত্যা

ছবি: গ্লোবাল টিভি

সজীব আহমেদ রিওন, কেরানীগঞ্জ (ঢাকা): ঢাকার কেরানীগঞ্জে কলাতিয়া সাদুপুর এলাকা থেকে লতা সরকার (৩৫) নামে এক বাক প্রতিবন্ধী নারীকে ফুসলিয়ে নিয়ে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ করেছে তার পরিবার। নিহতের পিতার নাম রতন সরকার। তার শরীরে ৬৫% দগ্ধ হয়েছিল বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। 

সোমবার রাত ৭টার দিকে এই ঘটনাটি ঘটে। দগ্ধ অবস্থায় তাকে পুলিশ উদ্ধার রাত আড়াইটার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বান ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করে। পরে  নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র আই সি ইউ তে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) রাত ৭ টার দিকে মারা যান তিনি।

নিহতের বোন পাখি সরকার বলেন, আমার বোন বাক প্রতিবন্ধী। ২৮ নভেম্বর বাসার সামনে থেকে একই এলাকার ভাড়াটিয়া এক ট্রাক চালক ফুসলিয়ে কদমতলী এলাকায় নিয়ে তাকে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে রেখে যায়। পরে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, আমাদের বাসা কেরানীগঞ্জ মডেল থানার কলাতিয়া সাদুপুর গ্রামে। আমার বোন প্রতিবন্ধী হওয়ায় তার এখনো বিয়ে হয়নি। আমরা তিন বোন দুই ভাই, সে ছিল সবার বড়।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ জামান বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

এএইচ