ঢাকা, রবিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৫ মাঘ ১৪২৯ | ৭ রজব ১৪৪৪

জামালপুরে আমনের ফলন নিয়ে স্বপ্ন বুনছেন কৃষকেরা

জামালপুরে আমনের ফলন নিয়ে স্বপ্ন বুনছেন কৃষকেরা

ছবি: গ্লোবাল টিভি

ফিরোজ শাহ, জামালপুর: এবার অসময়ে বন্যার কারণে জেলায় ব্যাপক ক্ষতি হলেও রোপা আমন ধানের বাম্পার ফলনে স্বপ্ন দেখছেন জামালপুরের কৃষকেরা। তবে বাজারে ধানের দাম কম হওয়া নিয়ে শঙ্কাও কাজ করছে তাদের মধ্যে। আশানুরূপ লাভ না পেলে ক্ষতির মুখে পড়তে পারে কৃষক । 

জামালপুর জেলার ৭টি উপজেলায় এবছর আমন ধানের বেশ ভালো ফলন হয়েছে। তবে বাজার দর কম হওয়ায় লাভ নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে কৃষক।

মেলান্দহ উপজেলার কুলিয়া গ্রামের একজন চাষি জানান, গত বছর এক বিঘা জমিতে হাইব্রিড জাতের ধানীগুল্ড আমন ধান চাষ করে ফলনও ভালো হয়েছিল, তাই এ বছর তিনি চার বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছেন। এবার বিঘা প্রতি ৩০-৩৫ মন ফলনের আশা করছেন তিনি। তবে এ বছর ধানের বাজার দর ভালো না থাকায় খুব হতাশায় আছেন।

একই গ্রামের আর এক চাষি বলেন, অন্যান্য বছরের চেয়ে এ বছর হাইব্রিড জাতের ধানের ফলন ভালো হয়েছে। খরচ হয়েছে প্রতি বিঘায় প্রায় ১৫ হাজার টাকার মতো। ধানের দাম কম হওয়ায় আমরা বিপদে আছি।

জামালপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক কৃষিবিদ মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, এ বছর জামালপুর জেলায় এক লাখ ছয় হাজার ৩০০ হেক্টর জমি আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। কিন্তু এক লাখ সাত হাজার ৮৬০ হেক্টর জমিতে তিন জাতের রোপা আমন ধান চাষ হয়েছে। এর মধ্যে হাইব্রিড জাতের ধান চাষিরা কিছু লাভবান হবে। উফসি ও স্থানীয় জাতের আমন ধান চাষিরা বাজারমূল্য কম থাকায় লাভবান হবেন না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

এএইচ