ঢাকা, রবিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৫ মাঘ ১৪২৯ | ৭ রজব ১৪৪৪

সৌদির কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু আর্জেন্টিনার

সৌদির কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু আর্জেন্টিনার

ছবি: সংগৃহীত

কাতার বিশ্বকাপে মঙ্গলবার  লুসাইল স্টেডিয়ামে দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলে হারিয়ে দারুণ কিছু রেকর্ডের মালিক হলো সৌদি আরব। গড়ল ইতিহাস। 

১৯৫৮ সালে জার্মানির বিপক্ষে প্রথমে গোল করেও ম্যাচ হেরেছিল আর্জেন্টিনা। এরপর প্রথমে গোল করে এগিয়ে যাওয়ার পর বিশ্বকাপে আর কখনো হারেনি তারা। তাছাড়া প্রথমার্ধে এগিয়ে থাকার পরও বিশ্বকাপের কোনো ম্যাচে পরাজয়ের ঘটনা ১৯৩০ সালের পর আর্জেন্টিনার জন্য এই প্রথম। 

বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে হারানো গত তিনটা দলই হয়তো বিশ্বকাপ জয় করেছে। নয়তো ফাইনাল খেলেছে। ২০১৮ সালে আর্জেন্টিনাকে গ্রুপ পর্বে হারায় ক্রোয়েশিয়া (৩-০)। নকআউট পর্বে আলবেসিলেস্তদের হারায় ফ্রান্স (৪-৩)। দুটি দলই গতবার ফাইনাল খেলে। চ্যাম্পিয়ন হয় ফ্রান্স। ২০১৪ সালে ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়েই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে জার্মানি। 

প্রথমার্ধে তিনবার অফসাইডের ফাঁদে ফেলে আর্জেন্টিনার গোল বাতিল করে সৌদি আরব। এর মধ্যে দুবার সরাসরি অফসাইড ধরেন সহকারী রেফারি। একবার ভিএআরের মাধ্যমে বাতিল হয় গোল। 

লুসাইল স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে অফসাইডের চোরাবালিতেই আটকে গেল আর্জেন্টিনা। আর ২-১ গোলের জয়ে দারুণ এক উৎসব করল সৌদি আরব। পাশাপাশি এশিয়ান ফুটবলের মান নিয়ে যারা প্রশ্ন তুলছেন, তাদের দিকে মোক্ষম জবাবই ছুঁড়ে দিল সৌদি আরব। 

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই লিওনেল মেসি দারুণ একটা শট নেন গোলমুখে। সৌদি আরবের গোলরক্ষক মোহাম্মদ আলোওয়াইস রুখে দেন মেসির শট। ম্যাচজুড়ে অন্তত তিনটা নিশ্চিত গোল বাঁচিয়েছেন তিনি। সৌদি আরবের ডিফেন্স লাইনও ছিল দুর্দান্ত। 
ম্যাচের শেষ দিকে একটা গোল গোললাইন সেভ করে আর্জেন্টিনার অপরাজিত থাকার বিশ্বরেকর্ড গড়ার পথ বন্ধ করে দেয় সৌদি আরব। তাদের থামতে হলো সৌদি আরবের সামনেই। 

২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছিলেন লিওনেল মেসিরা। মঙ্গলবার ম্যাচের দশম মিনিটে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টি দেন স্লোভেনিয়ার রেফারি স্লাভকো ভিনচিচ। লিওনেল মেসি ঠান্ডা মাথার এক গোলে দলকে এগিয়ে দেন। এরপর ২২ মিনিটে আরও একটা গোল করেন মেসি। তবে এই গোল অফসাইডের কারণে বাতিল করেন রেফারি। ২৮ মিনিটে মার্টিনেজ গোল করেন। ভিএআরের সাহায্যে এই গোলটাও বাতিল করা হয়।

৩৪ মিনিটেও অফসাইডের কারণে আরও একটা গোল বাতিল করা হয় আর্জেন্টিনার। সৌদি আরবের ৫ মিনিটের একটা ঝড়ই আর্জেন্টিনাকে ম্যাচ থেকে উড়িয়ে নিয়ে অনেকটা দূরে নিক্ষেপ করে। 

দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে নেমে প্লেসিং ফুটবল খেলে আর্জেন্টিনাকে মুহূর্তেই তছনছ করে দেয় সৌদিরা। ৪৮তম মিনিটে আল বুরাইকানের এসিস্টে গোল করেন সালেহ আলসেহরি। সমতায় ফেরে আসে সৌদি আরব। এরপর ৫৩তম মিনিটে সালেমের গোলে এগিয়ে যায় তারা। 

এএইচ