ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৭ মাঘ ১৪২৯ | ৯ রজব ১৪৪৪

ঈশ্বরদীতে সোয়া কোটি টাকার জমি দখলের অভিযোগ

ঈশ্বরদীতে সোয়া কোটি টাকার জমি দখলের অভিযোগ

ছবি: গ্লোবাল টিভি

ইয়াছিন আলী শেখ, ঈশ্বরদী (পাবনা): পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়নে জমি  দখলের অভিযোগ উঠেছে ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে ৷ 

ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে ভুক্তভোগী রঞ্জু আহমেদ বলেন, গত ৩০ জুন ২০২২ তারিখে ৩ একর ৬০ শতাংশ জমি ক্রয় করি মৃত তোফিজ উদ্দীনের ওয়ারিশবর্গের কাছে থেকে। জমিটা ক্রয় করি ১ কোটি ১৮ লক্ষ টাকা দিয়ে৷ কেনার পরে আমি খাজনাও দিই। আমার মায়ের ফুফাতো ভাই জানাল প্রামানিক ও তাইজাল প্রামানিক সেখানে চাষাবাদ শুরু করে। এক পর্যায়ে তখন ভূমিদস্যুরা এসে দেশীয় অস্ত্রসহ ভয়ভীতি দেখিয়ে জমিটা দখল করে নেয়৷। 

তিনি আরো বলেন, যারা জমিটা দখল করেছে, তারা অনেক শক্তিশালী ও ক্ষমতাবান৷ এরা হলেন- মৃত জুনাব বিশ্বাসের ছেলে টিপু বিশ্বাস,  দীপু বিশ্বাস ও লিটন বিশ্বাস। 

জমি বিক্রেতা তফিজ উদ্দীনের বড় ছেলে জিন্না প্রামানিক বলেন, এ জমিটা আমার বাবার।  বাবার মৃত্যুর পর আমরা ৫ ভাইবোন ও মা জমিটা বিক্রি করে দিই রঞ্জুর কাছে। রঞ্জুকে আমরা দখল বুঝিয়ে দিই। সে জমির খাজনা দেয়৷ চাষাবাদ শুরু করে৷ এক পর্যায়ে শুনি, জুনাব বিশ্বাসের তিন ছেলে জমিটা তাদের কাছে থেকে দখল করে নিয়েছে। 

এদিকে জমি লিজ নেয়া জালাল প্রামানিক ও তাইজাল প্রামানিক বলেন, আমি জমিটি লিজ নিয়ে মুলা চাষ করতে থাকি। আতিয়ার রহমানের ছেলে রঞ্জু আহমেদের কাছে  প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখেই আমি জমি লিজ নিয়েছি। কিন্ত জমি থেকে মুলা উত্তোলনের সময় একদিন আমি জমি দেখাশোনা করতে মাঠে গিয়েছি, এসময় দেশীয় অস্ত্রসহ টিপু বিশ্বাস,  দীপু বিশ্বাস,  ও লিটন বিশ্বাস আমাদের জমি থেকে চলে যেতে বলে। তারা আমাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে জমি থেকে তুলে দেয়। আমরা গ্রামের মাতব্বরদের সাথে আলোচনা করেছি। তারা প্রয়োজনীয় কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। 

স্থানীয় কয়েকজন জানায়,  কামালপুরের জুনাব বিশ্বাসের ছেলেপেলে নেশাগ্রস্ত, এটা সকলেই জানে। তারা বিভিন্ন অপকর্ম সন্ত্রাস, জমি দখলসহ নানা অপরাধের সাথে জড়িত। কোনো কিছু হলেই তারা দলবল হাসুয়া নিয়ে আক্রমণ শুরু করে। চেয়ারম্যান, মেম্বার,  থানা পুলিশ,  এসব বিষয় তারা পাত্তা দেয় না।  

অভিযুক্ত লিটন বিশ্বাস সকল অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন। বলেন, আমরা কোনো জমি দখল করে খাইনি। কাগজ কথা বলবে। জমি যেহেতু আমাদের দখলে, আমরা কোর্টে মামলা করেছি।

তবে জমির মালিকানা সংক্রান্ত কোনো ধরনের কাগজপত্র দেখাতে পারেনি অভিযুক্তরা।

এএইচ