ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৭ মাঘ ১৪২৯ | ৯ রজব ১৪৪৪

সোনাতলা বেড়িবাঁধ নদীতে বিলীন: অসহায় ২ হাজার পরিবার

সোনাতলা বেড়িবাঁধ  নদীতে বিলীন: অসহায় ২ হাজার পরিবার

ছবি: গ্লোবাল টিভি

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: কলাপাড়া উপজেলার জালালপুর গ্রামের সোনাতলা নদী অন্তত ৩০ মিটার বেড়িবাঁধ নদীতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। এতে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে আট গ্রামের দুই হাজার কৃষক পরিবার। ইতিমধ্যে সোনাতলা নদী সংলগ্ন পাউবোর ৪৬ নাম্বার ফোল্ডারটি অনেকাংশে নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। ফাঁটল ধরেছে অন্ততঃ আরো ২৫ থেকে ৩০ ফুট। 

ক্রমান্বয়ে ভাঙনের গতিবেগ বেড়ে যাওয়ায় ঝুঁকিতে রয়েছে জালালপুর, সদরপুর, আক্কেলপুর, সৈয়দপুর,মজিদবাড়িয়া, দরিয়াপুর, হাজীপুর ও লস্করপুর গ্রাম। এতে কৃষক আমন ধান হারানোর শঙ্কায় পড়েছে। ভাঙন কবলিত এলাকা ৮ /১০ মাস আগে বালু, সিমেন্ট বোঝাই জিও ব্যাগ দিয়ে প্রটেকশন দিলেও ভেঙে যাচ্ছে অপর অংশ। ভাঙনের গতি তীব্রতর হওয়ায় অমাবশ্যা কিংবা পূর্নিমার সময় জোয়ারের পানি ঢুকে পড়ে প্লাবিত হতে পারে ওই আটটি গ্রাম। অতি দ্রুত ভাঙনকবলিত এলাকায় মেরামতের ব্যবস্থা না নিলে পরণতি হতে পারে ভয়াবহ। 

এ ব্যাপারে জালালপুর গ্রামের অধিবাসী মো.জসিম মিয়া জানান, এ এলাকার অধিকাংশ মানুষ কৃষক। কৃষিকাজই তাদের জীবিকার একমাত্র উৎস। সেখানে বেড়িবাঁধটি ভেঙে গেলে ৮টি গ্রামের মানুষই ক্ষতির শিকার হবে। 

হাজীপুর গ্রামের মো.শফি মিরাজ জানান, চরম এ বিপদ থেকে মুক্তি দিতে সংশ্লিষ্টদের এগিয়ে আসা উচিত। 

নীলগঞ্জ ইউনিয় পরিষদের চেয়ারম্যান মো.বাবুল মিয়া জানান, বিষয়টি নিয়ে পাউবোতে আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু গুরুত্ব দিচ্ছে না বলে। 

কলাপাড়া পাউবোর নিবার্হী প্রকৌশলী মো.আরিফ হোসেন জানান, ঘটনা শুনে একজন এসও পাঠানো হয়েছে । শিঘ্রই ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
           
এএইচ