ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ | ১৩ মাঘ ১৪২৯ | ৫ রজব ১৪৪৪

গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর প্রথম প্রকাশ্যে মুখ খুললেন ইমরান

গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর প্রথম প্রকাশ্যে মুখ খুললেন ইমরান

ফাইল ছবি

বিবিসি জানিয়েছে, নতুন নির্বাচনের দাবি তুলে পাকিস্তানে ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে’ লং মার্চের ডাক দিয়ে মাঠে নেমে গুলিণবিদ্ধ হন ইমরান। গত ২৯ অক্টোবর লাহোর থেকে শুরু হয় এই কর্মসূচি। রাজধানী ইসলামাবাদের পথে চার দিন পর বৃহস্পতিবার পাঞ্জাবের ওয়াজিরাবাদে সমাবেশের জন্য তৈরি হলে সেখানে গুলিবিদ্ধ হন ইমরান খান।

লাহোরের একটি হাসপাতালে হুইল চেয়ারে বসে ইমরান খান বলেছেন, তিনি গুলি থেকে বাঁচতে পারতেন না; যে দুই শুটারকে তিনি দেখেছেন, তারা যদি একযোগে আক্রমণ চালাতো। কারণ- আমি পড়ে গেলাম, আর শুটারদের একজন ধারণা করল, আমি মারা গেছি এবং (সে) চলে গেল।

এরই মধ্যে পাকিস্তানের পুলিশ একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। ওই ভিডিওতে এক ব্যক্তি স্বীকারোক্তি দিয়েছেন, সাবেক ক্রিকেটার জনগণকে ‘বিপথগামী’ করছিলেন। এজন্য তিনি ‘ইমরান খানকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন’। তবে ওই ব্যক্তি ঠিক কোন পরিস্থিতিতে এই স্বীকারোক্তি দিয়েছেন, তা পরিষ্কারভাবে জানা যায়নি।

এদিকে ইমরান খানকে গুলির ঘটনার প্রতিবাদে তার দল পিটিআইয়ের বিক্ষোভ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে শুক্রবার পাকিস্তানজুড়ে ব্যাপক সহিংসতার খবর পাওয়া গেছে।

দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বড় বড় শহরে ইমরানের সমর্থকরা রাস্তা আটকে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। কোথাও কোথাও পিটিআইয়ের কর্মীরা পুলিশের দিকে ইট-পাথর ছুড়লে পাল্টা পুলিশ তাঁদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে; অনেক এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়াধাওয়ির ঘটনাও ঘটেছে।

কোয়েটায় মনন চকে পিটিআইয়ের বিক্ষোভে পাকিস্তানের পার্লামেন্টের সাবেক ডেপুটি স্পিকার কাশিম সুরি নেতৃত্ব দিয়েছেন। 

ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া ইমরান ২০১৮ সালে ভোটে জিতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হন। দেশটির রাজনীতিতে প্রভাব বিস্তারকারী সেনাবাহিনীর সমর্থন তখন তার দিকে থাকলেও কিছুদিন পর তাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়।

সেনা সমর্থন হারানো ইমরানের বিরুদ্ধে এই বছরের শুরুতে জোট বেঁধে অনাস্থা প্রস্তাব আনে দেশটির বড় দুই রাজনৈতিক দল। তাতে হেরে গত এপ্রিলে ইমরানের সরকারের পতন ঘটলে প্রধানমন্ত্রী হন মুসলিম লীগের শেহবাজ শরিফ, যিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই।

এএইচ