ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ২৬ মাঘ ১৪২৯ | ১৮ রজব ১৪৪৪

‘মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধে পুলিশকে দেয়া ক্ষমতা কেন অবৈধ নয়’

‘মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধে পুলিশকে দেয়া ক্ষমতা কেন অবৈধ নয়’

ছবি: গ্লোবাল টিভি

মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধে ঢাকা মহানগর পুলিশ অধ্যাদেশের ২৯ ধারায় ডিএমপি কমিশনারকে দেয়া ক্ষমতার বিধান কেন সংবিধান পরিপন্থী ও অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

জনস্বার্থে করা এসংক্রান্ত রিটের প্রাথমিক শুনানির পর বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের বেঞ্চ রবিবার এ রুল দেন। আইনসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, ডিএমপি কমিশনারকে চার সপ্তাহের মধ্যে এ প্রশ্নের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আবদুল মোমেন চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ছাড়া শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দ কুমার রায়।  

রিটকারী আইনজীবী আবদুল মোমেন চৌধুরী বলেন, অধ্যাদেশের দুটি ধারা (২৯ ও ১০৫) চ্যালেঞ্জ করা হয়েছিল রিটে। কিন্তু আদালত রিটের আরজি সংশোধন করে মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধ করার ক্ষমতাসংক্রান্ত ২৯ ধারার বৈধতা নিয়ে রুল জারি করেছেন।

গত বৃহস্পতিবার এ রিটে প্রাথমিক শুনানির পর রবিবার আদেশের জন্য রেখেছিলেন আদালত। সেদিন আদালত এ রিটে অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিনের বক্তব্য শোনেন। বিধানটির পক্ষে অবস্থান নিয়ে শুনানিতে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা সেদিন রিটটি খারিজের অনুরোধ করেছিলেন।  

আইনজীবী আবদুল মোমেন চৌধুরীর ভাষ্য, অধ্যাদেশের ২৯ ধারা সংবিধানের ৩৭ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। সংবিধানের ৩৭ অনুচ্ছেদ বলছে আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তিসঙ্গত বাধা-নিষেধ সাপেক্ষে সমাবেশ করার কথা। আর অধ্যাদেশে পুলিশ কমিশনারকে সভা-সমাবেশ, মিছিল নিষিদ্ধের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। সীমাবদ্ধতা (রেসট্রিকশন) আর নিষিদ্ধ (প্রোহিবিশন) সমার্থক নয়। দুটি শব্দের দুই অর্থ। সংবিধান যুক্তিসঙ্গত বাধা-নিষেধ সাপেক্ষে সভা-সমাবেশ সীমাবদ্ধ করেছে, নিষিদ্ধ করেনি। সুতরাং অধ্যাদেশের এই বিধান অসাংবিধানিক এবং সাংঘর্ষিক।  

সংবিধানের ৩৭ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, ‘জনশৃঙ্খলা বা জনস্বাস্থ্যের স্বার্থে আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তিসঙ্গত বাধা-নিষেধ সাপেক্ষে শান্তিপূর্ণভাবে ও নিরস্ত্র অবস্থায় সমবেত হইবার এবং জনসভা ও শোভাযাত্রায় যোগদান করিবার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের থাকিবে।’


ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ অধ্যাদেশ ১৯৭৬-এর ২৯ ও ১০৫ ধারা এবং ২০০৬ সালে প্রণীত এ অধ্যাদেশের বিধি ‘ঢাকা মহানগর পুলিশ (সভা, সমাবেশ, মিছিল এবং আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালার’ বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত ২০ অক্টোবর জনস্বার্থে এ রিট আবেদন করা হয়েছিল। 

বাকি চার আবেদনকারী হলেন- সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কে এম জাবির, চাঁদুপর আদালতের আইনজীবী সেলিম আকবর, রাজধানীর বাসিন্দা শাহ নুরুজ্জামান ও মোহাম্মদ ইয়াসিন।

এএইচ