ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ২৬ মাঘ ১৪২৯ | ১৮ রজব ১৪৪৪

মেট্রো রেলের সর্বনিম্ন ভাড়া ২০, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা

মেট্রো রেলের সর্বনিম্ন ভাড়া ২০, সর্বোচ্চ ১০০ টাকা

ফাইল ছবি

মেট্রো রেলের সর্বনিম্ন ভাড়া ২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, মেট্রো রেলে প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ টাকা।

মঙ্গলবার রাজধানীর উত্তরায় মেট্রো রেলের ডিপো এলাকায় মেট্রো রেল প্রদর্শনী ও তথ্যকেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি আরো জানান,
রাজধানীর উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত মেট্রো রেলের ভাড়া হবে ১০০ টাকা।

তবে শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়ার বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

সেতুমন্ত্রী বলেন, মেট্রো রেলে মাসিক, সাপ্তাহিক ও পারিবারিক কার্ড ব্যবহার করলে ভাড়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা থাকবে। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিরা প্রতিবার ভ্রমণে বিশেষ ছাড় পাবে। আহত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মেট্রো রেলে ভাড়া দিতে হবে না।

মন্ত্রী বলেন, ‘পরের বছর ডিসেম্বরের মধ্যে, অর্থাৎ সরকারের এই মেয়াদেই কাজ শেষ করতে পারব বলে আশা রাখছি। আর পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আগামী ডিসেম্বর বিজয়ের মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেট্রো রেলের উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত অংশের উদ্বোধন করবেন। এই অংশের ৯৪ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। এখন বাকি কাজ ও উদ্বোধনের জন্য প্রস্তুতিমূলক কাজ সেরে নেয়া হচ্ছে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে এমআরটি লাইন-১-এর মাধ্যমে রাজধানীর বিমানবন্দর থেকে কমলাপুল স্টেশন পর্যন্ত ৩১ কিলোমিটার মেট্রো রেল নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। এই ৩১ কিলোমিটারের মধ্যে ২১ কিলোমিটার পথ হবে পাতাল রেল এবং বাকি ১০ কিলোমিটার এলিভেটেড করা হবে।

জানা যায়, বর্তমানে মেট্রো রেলের শেষ ধাপের পরীক্ষামূলক চলাচল চলছে। ১৬ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১.৭৩ কিলোমিটার পথে যাত্রী নিয়ে মেট্রো রেল চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে। ২০২৪ সালের জুনে মেট্রো রেল প্রকল্প শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ২০২৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় বাড়ানো হয়েছে।

মেট্রো রেল লাইন-৬-এ উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত মোট ২০ সেট ট্রেন চলাচল করবে, আরো চার সেট ট্রেন বিকল্প হিসেবে চলাচলের জন্য প্রস্তুত থাকবে। তবে প্রথম ধাপে আগারগাঁও পর্যন্ত ১০ সেট ট্রেন দিয়ে চলাচল শুরু করা হবে। সেই ১০ সেট ট্রেন এই মুহূর্তে দিয়াবাড়ীতে অবস্থিত মেট্রো রেলের ডিপোতে রয়েছে। প্রতি সেটে দুটি করে লোকোমোটিভসহ (ইঞ্জিন) ছয়টি করে কোচ থাকবে। প্রতিদিন ভোর থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করবে।

এদিকে, মেট্রো রেলের এই ভাড়া পুনর্বিবেচনা করার দাবি জানিয়েছে সড়ক পরিবহন নিয়ে কাজ করা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সেভ দ্য রোড। এক বিবৃতিতে সংগঠনটির মহাসচিব শান্ত ফারজানা বলেন, গণমানুষের কল্যাণে যে মেট্রো রেলের ব্যবস্থা করা হয়েছে, সেই মেট্রো রেলে যেন জনগণ উঠতে না পারে, এমনভাবে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাসের ভাড়া বাড়ানোর পর তা দিতে গিয়েই সাধারণ মানুষের জীবন যখন ওষ্ঠাগত, তখন তার চেয়ে বেশি ভাড়া নির্ধারণ করলে তা তাদের ওপর খাঁড়ার ঘা হবে। একজন মধ্যম মাপের চাকরিজীবীর বেতন যেখানে ১৮ থেকে ২০ হাজার টাকা, তার বেতন থেকে মেট্রো রেলে অফিসে আসা-যাওয়ার জন্য গুনতে হবে কমপক্ষে ২৪০০ টাকা।

এএইচ