ঢাকা, শনিবার, ২ জুলাই ২০২২ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ | ৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

‘রত্নগর্ভা’ সম্মাননা পেলেন চাঁদপুরের ফয়েজুন্নেছা বেগম

‘রত্নগর্ভা’ সম্মাননা পেলেন চাঁদপুরের ফয়েজুন্নেছা বেগম

ছবি : গ্লোবাল টিভি

ফয়েজুন্নেছা বেগমের জীবনের গল্পটা অন্যদের চেয়ে একটু আলাদা। একজন নারী হয়ে সমাজ সচেতনতা ও সন্তানদের লেখাপড়ার প্রতি তিনি ছিলেন সচেতন। সাংসারিক কাজের পাশাপাশি সন্তানদের লেখাপড়া শিখিয়ে সুশিক্ষিত করেছেন। এ বছর স্বীকৃতি মিলেছে রত্নগর্ভা মায়ের।  আন্তর্জাতিক মা দিবস উপলক্ষে রোববার ‘রত্নগর্ভা’ সম্মাননা পেয়েছেন চাঁদপুরের সেই ফয়েজুন্নেছা বেগম। তিনি বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী ও কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ক্যালগেরি প্রবাসী সোহাগ হাসানের মা এবং গ্লোবাল টেলিভিশন বাংলাদেশের ডিজিএম এবং হেড অব গ্রাফিক্স তুহিন জাহিদের নানি।  

আট সন্তানের জননী ফয়েজুন্নেছার স্বামী ইন্জিনিয়ার আবদুর ছাত্তার পাটোয়ারী বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত চাঁদপুরের বিষ্ণুদী মাদ্রাসা রোড এলাকার পলাশ ভবনে বসবাস করেন। আট সন্তানের প্রত্যেকেই দেশে বিদেশের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষিত হয়ে স্ব -স্ব স্থানে দেশে-বিদেশে মর্যাদা সম্পন্ন চাকরিতে নিয়োজিত রয়েছেন।  

প্রবাসী সোহাগ হাসানের বড় ভাই ইসমে আজম পনির আমেরিকা থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে বিএসসি এবং এমবিএ সম্পন্ন করে দীর্ঘদিন ধরে আমেরিকার এটিএন টি’র প্রিন্সিপাল প্রোগ্রাম ম্যানেজার হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন। অন্যদিকে সোহাগ হাসান বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোক প্রশাসন বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে আলবার্টার সাউদার্ন আলবার্টা ইনস্টিউট অফ টেকনোলজি থেকে পিপিডি ডিগ্রি সম্পন্ন করে বর্তমানে আগাড ওয়েল এন্ড গ্যাস ল্যাবে কর্মরত রয়েছেন। মিসেস ফয়েজুন্নেছা’র বাকি ছয় সন্তানের মধ্যে জান্নাতুল মাওয়া, এম এ , চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি বেসরকারি এন জি ও তে কর্মরত। এ এস এম মঈন ডুয়েট থেকে বি এস সি ইন্জিনিয়ারিং (সিভিল) সম্পন্ন করে বর্তমানে ঢাকা আনোয়ার গ্রুপে ডিরেক্টর (অপারেশন) কর্মরত। গাউছুল আজম , চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে এম এস এস সম্পন্ন করে বর্তমানে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। আহসান হাবীব, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে এম এ ও পরবর্তীতে ডিপ্লোমা ইন মাল্টিমিডিয়া সম্পন্ন করে বর্তমানে ম্যানেজিং ডিরেক্টর, ক্লিক অন মার্কেটিং কমিউনিকেশনস লিমিটেডে কর্মরত। জান্নাতুল নাঈম, ইডেন মহিলা কলেজ থেকে (সমাজ বিজ্ঞান) এ’ এম এ সম্পন্ন করে সামাজিক সেবা কার্যক্রমে নিয়োজিত। এবং মিসেস ফয়জুন্নেসা’র সর্বকনিষ্ঠ সন্তান জান্নাতুল ফেরদাউস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে (উদ্ভিদবিজ্ঞান)এ’ এমএসসি এবং পিএইচডি সম্পন্ন করে বর্তমানে রাজশাহী কলেজের সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

নিজের মা রত্নগর্ভা সম্মাননায় ভূষিত এমন খবরে মিসেস ফয়েজুন্নেছা’র বড় সন্তান ইসমে আজম পনির বলেন, সন্তানেরা মাকে ঘিরেই রচনা করে ভালোবাসার পৃথিবী। মায়ের হাসি যে সন্তানের জন্য উৎসর্গ থাকে তার মতো সৌভাগ্যবান সন্তান আর কেউ নয়। মাকে খুশি করাই সব সন্তানের ব্রত হওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।মাতৃত্বেই সকল মায়া, মমতা ও ভালোবাসার শুরু এবং শেষ। তিনি আরো বলেন- ছোট বেলা থেকেই দেখেছি কিভাবে মা তাঁর শাসন আর ভালোবাসা দিয়ে আমাদের আগলে রেখেছেন, তাঁরই ফলশ্রুতি আজকের রত্নগর্ভা সম্মাননা।

কন্ঠশিল্পী সোহাগ হাসান বলেন, জন্মদাত্রী মা! প্রবাসে প্রতিটা ক্ষণ যাকে খুব মিস করি, যার কল্যাণে পৃথিবীতে আলোর মুখ দেখা সেই মা আজ রত্নগর্ভা সম্মাননা নিচ্ছে এর চাইতে বড় আনন্দ সন্তানের আর কিছুই হতে পারে না। তিনি আরো বলেন-নৈতিক চরিত্র ও মূল্যবোধের শিক্ষা সন্তানকে মা-ই দিয়ে থাকেন। একজন আদর্শ মা সন্তানের পাশে থাকেন বিপদে বন্ধু হিসেবে। হতাশায় আশার আলোকবর্তিকা হয়ে। অসহায় অবস্থায় অভিভাবক হয়ে। সর্বোপরি সকল পরিস্থিতিতে স্নেহ-দয়া ও ভালোবাসার অপার ভাণ্ডার হলেন মা। সবাই আমার রত্নগর্ভা মা’ এর জন্য দোয়া করবেন।

রত্নগর্ভা সম্মাননা পাওয়ায় মিসেস ফয়েজুন্নেছা ভালবাসা আবেগ আর আনন্দে কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমি ও কোন মা’য়ের সন্তান। এই আনন্দ সব সন্তানদের আনন্দ। পৃথিবীর সব মায়েদের আনন্দ। আমাদের মনে রাখা উচিত আজ যিনি সন্তান, তিনিই আগামী দিনের বাবা কিংবা মা। বৃদ্ধ বয়সে এসে মা-বাবারা যেহেতু শিশুদের মতো কোমলমতি হয়ে যায়, তাই তাদের জন্য সুন্দর জীবনযাত্রার পরিবেশ তৈরি করাই সন্তানের কর্তব্য।  রত্নগর্ভা এ সম্মাননা দেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

আজ তার ছেলেমেয়েরা ব্যক্তিগত ও পেশা জীবনে মা-বাবার সেই দায়িত্ববোধ, ত্যাগ-বিসর্জন, মানুষের প্রতি মমতা আর সাদামাটা জীবনযাপনের শিক্ষাটা চর্চা করছেন। তার আজীবনের ত্যাগ ও কষ্টের স্বীকৃতি হিসেবে পেলেন ‘রত্নগর্ভা’ খেতাব। শুধু ফয়েজুন্নেছা বেগমে নন, মোট ৩৮ জন পেয়েছেন এই খেতাব। তার মধ্যে ১৩ জনকে বিশেষ ও ২৫ জনকে সাধারণ ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। আন্তর্জাতিক মা দিবসে তাদের এই অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়েছে। রোববার সকালে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী সেন্টার মিলনায়তনে রত্নগর্ভা মায়েদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা। একই অনুষ্ঠানে দেওয়া হয়েছে ‘মাই ড্যাড ওয়ান্ডারফুল’ অ্যাওয়ার্ড। আজাদ প্রোডাক্টস প্রাইভেট লিমিটেড এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।