ঢাকা, শনিবার, ২১ মে ২০২২ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ | ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

চাকরিতে বয়স বৃদ্ধির দাবিতে অবরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ

চাকরিতে বয়স বৃদ্ধির দাবিতে অবরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ

ছবিঃ সংগৃহীত

পুলিশের লাঠিচার্জে ছত্রভঙ্গ হয়ে গিয়েছে চাকরিপ্রত্যাশীদের বয়স বৃদ্ধির আন্দোলনের আজকের অবরোধ কর্মসূচী।

জানা যায়, রবিবার (১৬ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে আন্দোলনরতদের উপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বৃদ্ধির দাবিতে নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন চাকরিপ্রত্যাশীরা। কয়েক দফা অনুরোধের পরও আন্দোলনকারীরা রাস্তা না ছাড়ায় লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীরা বলেন, গত বছরের ১৯শে আগস্ট জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ‘ব্যাকডেট’র মাধ্যমে বয়স ছাড়ের প্রজ্ঞাপন প্রহসনমূলক। এটি সকল শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে বৈষম্যমূলক পদ্ধতি রূপে প্রতীয়মান হচ্ছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ব্যাকডেট দিয়ে বয়স সমন্বয় করায় শুধু যাদের বয়স ৩০, তারাই উপকৃত হচ্ছেন। এই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়  ২০২১ সালের অক্টোবরে। আর কার্যকর হয় সেপ্টেম্বর থেকে। এতে হাতেগোনা কয়েকটি বিজ্ঞপ্তিতে সেই সুযোগ দেয়া হয়েছে, সেগুলোর বেশিরভাগ তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর চাকরি। তাই চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে বৃদ্ধির কোন বিকল্প নেই।

আন্দোলনরতদের ঘোষিত ৪ দফা দাবি হলো-

১. সকল চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে বৃদ্ধি করতে হবে।

২. নিয়াগে দুর্নীতি ও জালিয়াতি বন্ধ করতে হবে, নিয়োগ পরীক্ষার (প্রিলি ও রিটেন) প্রাপ্ত নম্বরসহ ফলাফল প্রকাশ করতে হবে।

৩. চাকরিতে আবেদনের ফি সর্বোচ্চ ১০০ টাকা করতে হবে।

৪. একই সময়ে একাধিক নিয়ো পরীক্ষা বন্ধ করে সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে।

এই আন্দোলনের নেতৃত্বে রয়েছেন, তাদের মধ্য থেকে আইরিন দীবা বলেন, আজ আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীতে পুলিশ নির্বিচার হামলা চালিয়েছে। এতে আমাদের অনেক ছেলেমেয়ে আহত হয়েছে। তাছাড়া কয়েকেজনকে আটকও করা হয়েছে।

এএইচ