ঢাকা, রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭

 
 
 
 

৭ই মার্চের ভাষণ রক্ষার প্রকৃত ইতিহাস

গ্লোবালটিভিবিডি ৬:১৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ০৬, ২০২০

ফাইল ছবি

আনিসুর রহমান : বঙ্গবন্ধুর অগ্নিঝরা ৭ মার্চের ভাষণ বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রামের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। ইতিহাস স্বাক্ষ্য দেয়, সেদিনের সেই কালজয়ী ভাষণ গোটা বাঙালি জাতিকে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে উদ্বুদ্ধ করেছিলো। যার বিনিময়ে অর্জিত হয়েছিল বাঙালির কাঙ্ক্ষিত বিজয়। স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্ব মানচিত্রে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই অমর ভাষণকে ২০১৭ সালে ইউনেস্কো ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে’ যুক্ত করে। 


ঐতিহাসিক সেই ভাষণটি ভিডিও ধারণ হয়েছিল পাকিস্তান সরকারের ক্যামেরায়। লোকচক্ষুর অন্তরালে ৭ই মার্চের ভাষণের সেই টেপটি জীবনবাজি রেখে রক্ষা করা হয় পাকিস্তানি হায়েনাদের থাবা থেকে।

বঙ্গবন্ধুর আস্থাভাজন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান সরকারের চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের ফিল্ম ডিভিশনের জ্যেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক জি জেড এম এ মুবিনের বীরত্বে রক্ষা পেয়েছিল বাঙালির ইতিহাসের এই অমূল্য সম্পদ।

ফিল্ম ডিভিশনের প্রধান আবুল খায়েরের নির্দেশে পাঁচজন সহকারী নিয়ে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ সকালে হাজির হন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের রাজধানী ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে।

তিনি জানান, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শুরু হওয়ার কথা ছিলো বিকাল ৩টায়, শুরু হয়েছে আধঘণ্টা পর। বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের লক্ষ জনতার উত্তাল জনসমুদ্র সেদিন অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেছে, বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশ পাওয়ার।

জনসমাবেশ শেষে ভাষণটির একটি কপি নিয়ে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের বাসায় বঙ্গবন্ধুর সাথে দেখা করতে যান তিনি, সাথে ছিলেন আবুল খায়ের। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে ধারণ করা ভাষণটি রক্ষা করতে মরিয়া হয়ে ওঠেন চিত্রগ্রাহক জিজেডএমএ মুবিন। প্রথমে সেটি রাখেন, তখনকার প্রধান নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তারের বাসায়। এর কিছুদিন পর সেটি রাখেন রাজধানীর মোহম্মদপুরে পশ্চিম পাকিস্তানি এক সেনা কর্মকর্তার শ্বশুর বাড়িতে। সবশেষ সেটি তার নিজ অফিসেই সংরক্ষণ করেন।

৭ই মার্চের ভাষণের টেপের ফিতাটি সংরক্ষণ করার বিষয়টি শুধু চিত্রগ্রাহক জিজেডএমএ মুবিন ও তৌহিদ বাবু নামে তাঁর এক সহকারী জানতেন।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ভাষণের একটি কপি তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনকে দেন, অপর একটি কপি দেন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে।

এআর/এমএস

 

 


oranjee