ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ |

 
 
 
 

২১ আগস্ট সমাবেশে গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছিলেন ইকবাল: র‌্যাব ডিজি

গ্লোবালটিভিবিডি ২:৫৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি ইকবাল হোসেন ওরফে ইকবাল ওরফে জাহাঙ্গীর ওরফে সেলিমকে (৪৭) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। তিনি হামলার সময় সরাসরি সমাবেশের মঞ্চ উদ্দেশ্য করে গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছিলেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

আজ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ানবাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে রাজধানীর দিয়াবাড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইকবালকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‍্যাব মহাপরিচালক বলেন, জঙ্গি নেতা মুফতি হান্নানের নির্দেশে ইকবাল হোসেন গ্রেনেড হামলায় জড়িত হন। তিনি হামলার সময় সরাসরি সমাবেশের মঞ্চ উদ্দেশ্য করে গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছিলেন। হামলার পর আত্মগোপনে গিয়ে কখনো নিরাপত্তাকর্মী, শ্রমিক আবার কখনো রিকশার মেকানিক হিসেবে ছদ্মবেশে জীবনযাপন করতে থাকেন। এক পর্যায়ে অবৈধ অভিবাসী হিসেবে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমান। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, ম্যানুয়াল পাসপোর্টের সুযোগ নিয়ে ভিন্ন পরিচয়ে বিদেশে চলে যান তিনি। গত বছরের শেষের দিকে অবৈধ অভিবাসী হিসেবে তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তার পলাতক জঙ্গি ইকবালকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব ডিজি বলেন, এইচএসসি পাস ইকবাল স্কুল-কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তিনি ১৯৯৪ সালে ঝিনাইদহ কেসি কলেজের ছাত্র সংসদে ছাত্রদলের নির্বাচিত শ্রেণি প্রতিনিধি ছিলেন। ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত কর্মজীবী হিসেবে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করেন তিনি।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় মুফতি হান্নানের নির্দেশে সরাসরি অংশ নেন জানিয়ে র‌্যাব প্রধান বলেন, মুফতি হান্নান তাকে গ্রেনেড সরবরাহ করেছিলেন। হামলার সময় সরাসরি মঞ্চ লক্ষ্য করে গ্রেনেড ছুঁড়েছিলেন তিনি। ঘটনার পরপরই তিনি আত্মগোপনে ঝিনাইদহে চলে যান।

র‌্যাব ডিজি বলেন, 'আমরা ধারণা করছি, ২০০৮ সালে ম্যানুয়াল পাসপোর্টের সুযোগে ভিন্ন নামে দেশ ছেড়েছিলেন তিনি। বিদেশে গিয়েও দুইবার নাম পরিবর্তন করেন ইকবাল।'

এএইচ/জেইউ 


oranjee