ঢাকা, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ |

 
 
 
 

ভারতের পাঞ্জাবে বিষাক্ত মদ্যপানে ৮৬ জনের মৃত্যু

গ্লোবালটিভিবিডি ৮:২৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০২, ২০২০

ছবিঃ সংগৃহীত

ভারতের পাঞ্জাবের তিন জেলায় আজ রোববার সকাল পর্যন্ত গত তিন দিনে বিষাক্ত মদ্যপানে ৮৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ নিয়ে করোনা মহামারির মধ্যে পুরো পাঞ্জাবে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যম দ্য ওয়াল।

নিহতদের মধ্যে তরন জেলায় ৬৩ জন, গুরুদাসপুরে ১২ জন ও অমৃতসরে ১১ জন রয়েছেন।

ভারতের সংবাদ মাধ্যম দ্য ওয়াল এক প্রতিবেদনে জানায়, এখনও প্রায় শতাধিক মানুষ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ফলে মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রশাসনের।

এ নিয়ে সরাসরি কংগ্রেস সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছে পাঞ্জাবের শিরোমণি আকালি দল। আকালি দলের নেতা সুখবীর সিং বাদল সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন, এই গণমৃত্যুর দায় নিয়ে অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংয়ের পদত্যাগ করা উচিত।

আকালি নেতা সুখবীর সিং বাদল সংবাদ মাধ্যমে এই ঘটনায় সরাসরি কংগ্রেসকে কাঠগড়ায় তুলেছেন। তাঁর কথায়, ‘কংগ্রেসের নেতা ও বিধায়কদের লাইসেন্সেই এই বেআইনী ব্যবসা চলছিল। এত মানুষের মৃত্যুর দায় কংগ্রেসকেই নিতে হবে।’

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরেন্দ্র সিং শনিবার রাতে জানিয়েছেন, দোষীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে। শনিবার রাত পর্যন্ত এ ঘটনায় ২৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সাসপেন্ড করা হয়েছে আবগারি দপ্তরের ৭ জন কর্মকর্তা ও ৬ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পাল্টা বলেছেন, ‘মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করা কোনো দায়িত্বশীল দলের কাজ নয়। এখন করোনা সংক্রমণ চলছে। তার মধ্যেই এই ঘটনা ঘটেছে। প্রশাসন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, সরকারের যদি মনোভাব থাকত কাউকে আড়াল করবে তাহলে এতজনকে গ্রেফতার ও বহিষ্কার করত না। সূত্র : ইউএনবি

এমএস/জেইউ


oranjee