ঢাকা, রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ |

 
 
 
 

ইতালিতে এবার বন্ধ করে দেয়া হল বাংলাদেশী মালিকানাধীন দোকান

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

করোনায় স্বাস্থ্য বিধি না মানায় এবার ইতালিতে পুলিশ বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশী মালিকানাধীন একটি মিনি সুপার মার্কেট।

বাংলাদেশী ভুয়া করোনা সার্টিফিকেট ও বাংলাদেশী যাত্রী ইতালি ঢুকতে না দেয়া এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে বাইরে ঘোরা-ফেরা করাসহ বিভিন্ন বিষয়ে ইতালির মিডিয়া বাংলাদেশী করোনা আক্রান্ত যাত্রীদের নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা করে সংবাদ প্রচার করে।
সেখানকার বিমানবন্দরে অর্ধশতাধিক প্রবাসীর শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্তের পর ইতালিতে অবস্থান করা বাংলাদেশীদের করোনা টেস্ট করা বাধ্যতামূলক করণের উদ্যোগ নিয়েছে ইতালি সরকার।

এর পাশাপাশি চলছে বাংলাদেশী মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ইতালি পুলিশের চেকিং।

গত ১০ জুলাই শুক্রবার বিকালে ইতালির রাজধানী রোম সংলগ্ন “সান পিয়াত্র” এরিয়াতে বাংলাদেশী মালিকানাধীন একটি মিনি সুপার মার্কেটে অভিযান চালায় পুলিশ। সেখানে গিয়ে পুলিশ দেখে ঐ দোকানের কারো মুখে মাস্ক নেই এবং তারা কেউ স্বাস্থ্য বিধি মানছে না। এমনকি ৪২ বছরের দোকান মালিকের মুখেও মাস্ক নেই।

করোনা স্বাস্থ্য বিধি ভঙ্গের জন্য ইতালি পুলিশ “সান পিয়াত্র” এরিয়ার বাংলাদেশী মালিকানাধীন মিনি সুপার মার্কেটটি পাঁচ দিনের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে। দোকান ১৫ জুলাই পর্যন্ত খুলতে পারবে না।

বাংলাদেশ থেকে আসা প্রবাসীদের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্তের পর ইতালিতে খুবই অস্বস্তির মধ্যে রয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

এর মধ্যে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে ব্যবসা করা এবং পুলিশ এসে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার ঘটনায় ইতালিতে বসবাস করা বাংলাদেশিরা বিপাকে পড়েছেন।

রোমে বসবাসকারী একাধিক প্রবাসী বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শুরুতে আমরা দেখেছি, ইতালির স্থানীয় বাসিন্দারা চিনা নাগরিকদেরকে দেখলে এড়িয়ে চলতেন। আর এখন তারা বাংলাদেশী প্রবাসীদের দেখলে এড়িয়ে চলে। রাস্তায় চলাচলের সময় এখন আমাদেরকে এরকম অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে চলা ফেরা করতে হয়। এটা আমাদের জন্য খুবই কষ্টকর। তথ্যসূত্রঃ ফ্রান্স বাংলা

জেইউ


oranjee