ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ ২০২১ |

 
 
 
 

ইরফান সেলিমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

গ্লোবালটিভিবিডি ৪:০৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১

ফাইল ছবি

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর ও হত্যা চেষ্টা মামলায় ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) হাজি সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) জমা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা (ডিবি) রমনা বিভাগ।

আজ শনিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে রাজধানীর মিন্টো রোডে এই সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। তদন্তে নৌ বাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খানকে ইরফান সেলিমের সহযোগীদের মারধরের প্রমাণ মিলেছে বলেও জানায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি) গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, ঘটনার সময় ইরফান সেলিম গাড়িতে অবস্থান করছিলেন। তদন্তে মারধরের ভিত্তিতে ঘটনার সঙ্গে তার সহযোগীদের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় অভিযোগপত্র তৈরি করা হয়। গত ৮ ফেব্রুয়ারি হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্রটি জমা দেয়া হয়েছে।

গত বছরের ২৫ অক্টোবর রাতে ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমের 'সংসদ সদস্য' লেখা সরকারী গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মারধর করা হয়। ওই ঘটনায় পরের দিন ২৬ অক্টোবর সকালে ইরফান সেলিম, তাঁর বডিগার্ড মো. জাহিদুল মোল্লা ও এ বি সিদ্দিক দিপু, গাড়িচালক মিজানুর রহমান এবং অজ্ঞাত ২-৩ জনকে আসামি করে ওয়াসিফ আহমদ খান বাদী হয়ে ধানমণ্ডি থানায় মামলা করেন।

একই ঘটনায় পরের দিন ২৬ অক্টোবর পুরান ঢাকার বড় কাটরায় ইরফানের বাবা হাজী সেলিমের বাড়িতে দিনভর অভিযান চালায় র‌্যাব। ওই সময় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত মাদক রাখার দায়ে এরফান সেলিমকে এক বছর কারাদণ্ড দেন। আর ইরফানের দেহরক্ষী মো. জাহিদকে ওয়াকিটকি বহন করার দায়ে ছয় মাসের সাজা দেন। এরপর একই বছরের ২৮ অক্টোবর র‌্যাব-৩ এর ডিএডি কাইয়ুম ইসলাম চকবাজার থানায় ইরফান সেলিম ও দেহরক্ষী জাহিদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদকের পৃথক চারটি মামলা দায়ের করেন।

এমএস/জেইউ 


oranjee

আরও খবর :