ঢাকা, রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১ |

 
 
 
 

অমর একুশে গ্রন্থমেলার তারিখ নির্ধারণ হয়নি : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

ছবি সংগৃহীত

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ জানিয়েছেন, ২০২১ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলার তারিখ নির্ধারণ হয়নি। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে শারীরিক উপস্থিতিতে বইমেলা হবে।

আজ রোববার দুপুরে বাংলা একাডেমির শহীদ মুনীর চৌধুরী সভাকক্ষে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা জানান।

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ আরও জানান, ২০ ফেব্রুয়ারি, ১৭ মার্চ ও ২৭ মার্চ প্রস্তাবিত তিন তারিখ প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হবে।

এর আগে, বেলা সাড়ে ১১টায় বাংলা একাডেমির শহিদ মুনীর চৌধুরী সভাকক্ষে এক বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, মেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমির ঊর্ধ্বতনদের পাশাপাশি প্রকাশকদের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

গত ১০ ডিসেম্বর বইমেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমির নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে ২০২১ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলা সাময়িকভাবে স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ভার্চুয়ালি বইমেলার আয়োজনেরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

গণমাধ্যমে এ খবর প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন লেখক-সাহিত্যিকরা। বাংলা একাডেমির এ সিদ্ধান্তকে ‘একতরফা’ ও ‘স্বেচ্ছাচারী’ বলে গণমাধ্যমে বিবৃতি দেন প্রকাশকরা।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ১৩ ডিসেম্বর সকালে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রকাশকদের দুই সমিতি-'বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি' এবং 'বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি'-এর নেতারা।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ভার্চুয়ালি নয়, শারীরিক উপস্থিতিতেই আয়োজিত হবে ২০২১ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলা। তবে প্রথা অনুযায়ী, পহেলা ফেব্রুয়ারি থেকে এবারের বইমেলা শুরু হচ্ছে না। এজন্য প্রকাশকদের কাছ থেকে প্রস্তাব চাওয়া হয় বাংলা একাডেমির পক্ষ থেকে। এ সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে ১৫ ডিসেম্বর শারীরিক উপস্থিতিতে ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৭ মার্চ পর্যন্ত মাসব্যাপী অমর একুশে বইমেলা আয়োজনের জন্য বাংলা একাডেমিকে লিখিত প্রস্তাব দেয় প্রকাশকদের দুই সংগঠন 'বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি' এবং 'বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি'।

এমএস/জেইউ 


oranjee