ঢাকা, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ |

 
 
 
 

আজ এটি এম শামসুজ্জামানের জন্মদিন

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২০

ফাইল ছবি

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের জন্মদিন আজ। ১৯৩৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর তাঁর জন্ম।

শুধু চলচ্চিত্রেই নয়, নাটকের পর্দায়ও সমানভাবে জনপ্রিয় এটিএম শামসুজ্জামান একাধারে নির্মাতা, চিত্রনাট্যকার, কাহিনীকার, সংলাপ রচয়িতা ও গল্পকার।

এটিএম শামসুজ্জামান পড়াশোনা করেছেন ঢাকার পগোজ স্কুল, কলেজিয়েট স্কুল, রাজশাহীর লোকনাথ হাই স্কুলে। তিনি ময়মনসিংহ সিটি কলেজিয়েট হাই স্কুল থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পাস করেন। তারপর জগন্নাথ কলেজে ভর্তি হন।

এটি এম শামসুজ্জামানের পিতা নূরুজ্জামান ছিলেন নামকরা আইনজীবী। তিনি শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের সঙ্গে রাজনীতি করতেন। মায়ের নাম নুরুন্নেসা বেগম। পাঁচ ভাই ও তিন বোনের মধ্যে শামসুজ্জামান সবার বড়।

১৯৬১ সালে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে সহকারি পরিচালক হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন তিনি। চলচ্চিত্রের জন্য প্রথম কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘জলছবি’। পরিচালক ছিলেন নারায়ণ ঘোষ মিতা। আর এই ছবিটির মাধ্যমেই অভিনেতা ফারুকের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়।

এ পর্যন্ত শতাধিক চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য ও কাহিনী লিখেছেন তিনি। প্রথম দিকে কৌতুক অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করলেও ১৯৬৫ সালে ভিন্ন ধারার অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্রে আগমন তাঁর। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ চলচ্চিত্রে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন এটিএম শামসুজ্জামান। এরপর একের পর এক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

১৯৮৭ সালে কাজী হায়াত পরিচালিত ‘দায়ী কে’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। এরপর ১৯৯৯ সালে ‘ম্যাডাম ফুলি’, ২০০১ সালে ‘চুড়িওয়ালা’ এবং ২০০৯ সালে ‘মন বসেনা পড়ার টেবিলে’ সিনেমাতে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

সর্বশেষ ২০১২ সালে রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘চোরাবালি’ ছবিতে অভিনয় করে তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-চরিত্রে অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। ২০১৫ সালে পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা একুশে পদক। বর্তমানে চলচ্চিত্রে কাজ না করলেও নাটকে নিয়মিত কাজ করছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা।

এটিএম শামসুজ্জামান অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে অন্যতম ‘লাঠিয়াল’, ‘নয়নমনি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘অশিক্ষিত’, ‘সূর্যদীঘল বাড়ি’, ‘ছুটির ঘণ্টা’, ‘লাল কাজল’, ‘পুরস্কার’, ‘দায়ী কে?’, ‘দোলনা’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, 'শাস্তি' ‘অজান্তে’, ‘স্বপ্নের নায়ক’, ‘চুড়িওয়ালা’, ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’, ‘মোল্লা বাড়ির বউ’, ‘হাজার বছর ধরে’, ‘চাঁদের মতো বউ’, ‘মন বসেনা পড়ার টেবিলে’, ‘এবাদাত’, ‘পরান যায় জ্বলিয়ারে’, ‘কুসুম কুসুম প্রেম’, ‘গেরিলা’, ‘লাল টিপ’, ‘চোরাবালি’, ‘পাংকু জামাই’।

তাঁর অভিনীত উল্লেখযোগ্য টিভি নাটক হচ্ছে- ‘রঙের মানুষ’, ‘ভবের হাট’, ‘ঘর কুটুম’, ‘বউ চুরি’, ‘নোয়াশাল’, ‘শতবর্ষে দাদাজান’।

এএইচ/জেইউ


oranjee