ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০২০ |

 
 
 
 

একুশে টিভিতে আবারো আসছে ধারাবাহিক ‘খান বাড়ি বাড়াবাড়ি’

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:৫৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৬, ২০২০

ফাইল ছবি

করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারো একুশে টিভির পর্দায় দেখা যাবে নাট্যপরিচালক সকাল আহমেদ-এর কমেডি ঘরানার রয়েল টাইগার নিবেদিত (পাওয়ার্ড বাই-ফিজআপ) ধাবারাহিক নাটক ‘খান বাড়ি বাড়াবাড়ি’।

ধারাবাহিকটি রচনা করেছেন ইউসুফ আলী খোকন। একুশে টেলিভিশনের পর্দায় নাটকটি প্রচারিত হবে আগামী ৯ আগস্ট শনিবার থেকে বুধবার (সপ্তাহে ৫দিন) রাত ০৯:৩০ মিনিটে। নাটকটি প্রযোজনা করেছেন তুহিন বড়ুয়া।

নাটকটিতে চার বোনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন- পারসা ইভানা, কাজল সুবর্ণ, নিশাত প্রিয়ম ও সামান্তা। তাদের আরো একজন বোনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন মীম চৌধুরী। মূলত এই পাঁচ বোনের গল্প নিয়েই নাটকের কাহিনী আবর্তিত। তাদের বাবার চরিত্রে অভিনয় করছেন মাহমুদুল ইসলাম মিঠু। এছাড়াও রয়েছেন প্রাণ রায়।

খান বাড়ির সব কিছুতেই যেনো একটু বাড়াবাড়ি। মানে এই বাড়ির মানুষগুলো সব কিছুতে একটু বেশি বেশি করে। এই বেশি বেশি করার কারণে মানুষগুলোকে একটু অস্বাভাবিক মনে হয়।

খান বাড়ীর মালিক তারেক খান, পাঁচ মেয়ে তমা, কনা, লতা, জুঁই, ও হেনা। চার মেয়ের জন্মের পর পুত্র সন্তানের আশায় খান সাহেবের স্ত্রী পঞ্চম বার মা হতে গিয়ে মারা যান এবং উপহার দিয়ে যান আরো একটি কন্যা সন্তান। এই পাঁচ কন্যাকে নিয়ে খান সাহেবের সংসার। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর তিনি আর বিয়ে করেননি। পাঁচ মেয়ের কাছে খান সাহেব কখনো বাবা, কখনো আবার মা। সুতরাং, বোঝা যায় সংসারে খান সাহেবের অবস্থা।

খান সাহেব সন্তানদের শাসনের চাইতে আদর আর প্রশ্রয় দিতেই ভালোবাসতেন। সে কারণে খান সাহেবের মেয়েগুলো আদরে আদরে বাঁদর হয়ে উঠেছে। পাঁচ মেয়ের বাঁদরামিকে নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে খান সাহেব সবসময় কোনো না কোনো বিপাকে পড়েন। একের পর এক জন্ম হয় নতুন নতুন গল্পের।

নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে ইভানা বলেন, ‘সকাল ভাই একজন মেধাবী ও গুণী পরিচালক। দীর্ঘদিন পর তার পরিচালনায় ধারাবাহিক নাটকে কাজ করছি। যেহেতু এখানে আমাদের পাঁচ বোনকে ঘিরে নাটকের গল্প আবর্তিত, তাই আমরা ভীষণ উপভোগ করছি কাজটি।’

এমএস/জেইউ

 

 


oranjee