ঢাকা, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ | ১২ চৈত্র ১৪২৬

 
 
 
 

কক্সবাজারে করোনা রোগী শনাক্ত : সংস্পর্শে আতংকিত শতাধিক মানুষ

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:০৯ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২০

ছবি- গ্লোবালটিভি

জসীম উদ্দীন,কক্সবাজার : কক্সবাজারে এক বৃদ্ধা মহিলার দেহে করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) শনাক্ত হয়েছে। ওই নারী গত ১৩মার্চ সৌদি থেকে ওমরাহ্‌ পালন করে দেশে আসেন। তাঁকে বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। মহিলাকে দেখভালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের একটি টিম সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছে বলে জানিয়েছেন,কক্সবাজার সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মহিউদ্দিন।

তিনি জানান, কোভিড১৯ শনাক্ত হওয়া মহিলা কয়েকদিন যাবৎ সদর হাসপাতালের কেবিনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চিকিৎসার একপর্যায়ে ওই রোগীর দেহে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়। পরে তাঁর রক্তের নমুনা আইইডিসিআর -এ পাঠানো হলে মঙ্গলবার ২৪মার্চ দুপুরে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। করোনা আক্রান্ত মহিলার বাড়ি কক্সবাজারের চকরিয়ায়।

এদিকে মহিলাটির দেহে করোনা শনাক্তের পর তাঁর আত্মীয়স্বজন ও চিকিৎসকসহ সংস্পর্শে আসা সবার মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। এরই মধ্যে সংস্পর্শে আসা সদর হাসপাতালের ১০ চিকিৎসকসহ মোট ২১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। সেখানে ৮ জন নার্স ও ৩ জন ক্লিনার রয়েছে। তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মোহাম্মদ শাহীন আবদুর রহমান চৌধুরী।

একই কারনে কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ টেকপাড়া পাহাড়তলী রোডের কচ্ছপিয়া পুকুরের মোড় হতে পশ্চিমে খোরশেদ ভবনের সামনে হয়ে পল্লবী লেইন লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। করোনা শনাক্ত হওয়া মহিলা সেখানে তাঁর ছেলের বাসায় থাকতেন বলে জানাগেছে।

মঙ্গলবার বিকালের দিকে কক্সবাজার সদর উপজেলার ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ উল্লাহ মারুফের নেতৃত্বে এলাকাটি লকডাউন ঘোষনা করে লাল পতাকা, ব্যানার টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়া মহিলাটি চট্টগ্রামে একটি বাসায় অবস্থান করায় সে বাসা এবং খুটাখালীর তাঁর বাড়িটি লকডাউন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জেলার সদর হাসপাতালে করোনা রোগীর অবস্থানের খবরে পুরো হাসপাতাল জুড়ে এক ধরনের ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন চিকিৎসক জানান, মহিলাটির সংস্পর্শের কারনে অনেকই এখন আতংকিত, এমন কি আমি নিজেকেও অনিরাপদ বলে মনে করছি । হাসপাতালের ভিতরে চিকিৎসাধীন রোগী ও তাঁদের স্বজনদের মধ্যে এক ধরনের আতংক বিরাজ করছে বলে জানান তিনি।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে করোনা আক্রান্ত মহিলাটি মত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে। এর পর থেকে কক্সবাজারের শহরের রাস্তাঘাট এক প্রকার ফাঁকা হয়ে পড়ে। তবে মহিলাটির মত্যুর খবর গুজব বলে দাবি করেছেন সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। তিনি জানান, রোগী আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে মারা যায়নি।

করোনা আক্রান্তের বিষয়টি স্বীকার করলেও মহিলার মৃত্যু গুজব নিয়ে তাঁর আত্মীয়স্বজনের কেউ মুখ খুলেননি।

আরকে


oranjee