ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

ঠাকুরগাঁওয়ে ফসল বাচাঁতে ধানক্ষেতে প্রদীপ পূজা!

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:১৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

সাদ্দাম হো‌সেন, ঠাকুরগাঁও : আধুনিকতার এ যুগেও ঠাকুরগাঁওয়ে ধানক্ষেতে প্রদীপ জ্বালিয়ে করা হলো বিশেষ পূজা। গত দুদিন ধরে এই বিশেষ পুজো আয়োজন করা হয় সদর উপজেলার শাসলা পিয়ালাসহ বিভিন্ন গ্রামে । জমির ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি এবং পোকামাকড়ের খপ্পড় থেকে ফলস বাঁচাতে হিন্দু সমাজের কৃষকরা এই পুজা আয়োজন করে। 

শাসলা পিয়ালা গ্রামের কামিনী রায় বলেন , আশ্বিনের শেষ কার্তিকের শুরুতে এই পুজা করা হয় প্রতিবছর । তবে এটি কোন ধর্মীয় পুজা নয় , সামজিক প্রথা । হিন্দু ছাড়াও অন্য সমাজের কৃষকরা ধানক্ষেতে প্রদীপ প্রজ্জ্বলিত করে।

লোকসংষ্কৃতি কর্মী ও শিক্ষক প্রফুল্ল রায় জানিয়েছেন, এই পুজোকে ক্ষেতি, অর্থাৎ ক্ষেতের ফসল রক্ষার পুজা বলা হয়। ডাকলক্ষী বলেও পরিচিত অনেকের কাছে। ফসলকে পোকামাকড় থেকে রক্ষা করার জন্য যেহেতু ডাক দেয়া হয়, সেই জন্যই একে ডাকলক্ষ্মী বলা হয়।

টোলার হাট গ্রামের কৃষক নৃপতিভূষণ রায় জানান, ফসলের জমিতে আলোর ফাঁদ, সেক্স ফেরোমন ফাঁদ বসানো বিজ্ঞানসম্মত । জমির ধান পোকামাকড়ের আক্রমণ থেকে বাঁচাতে এখন আমরা বিভিন্ন ধরনের কীটনাশক ব্যবহার করে থাকি। এতে কৃষি উৎপাদনের খরচও বেড়েছে। কিন্তু জৈব পদ্ধতিতে পোকা দমনে যেমন নিরাপদ খাদ্য মেলে, উৎপাদন খরচও সাশ্রয় হয় ।

তিনি বলেন, হিন্দু সম্প্রদায় এটাকে পুজো হিসেবে নিয়ে এই জৈব্য কীটনাশক গুঁড়ো ধান ক্ষেতে ছিটিয়ে পোকা দমন করে । তবে এ প্রসঙ্গে ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আফতাব হোসেন বলেন এটা তাদের লোকজ সংস্কৃতি । তবে কৃষি বিভাগ ধান ক্ষেতে আলোর ফাঁদ বসিয়ে ক্ষতিকর চিহ্নিত করে ওই পোকা দমনে কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হয় ।

এসএইচ/আরকে


oranjee