ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

দাবি পূরণ না হলে মিয়ানমারে ফিরবে না রোহিঙ্গারা

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:০৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০১৯

সমাবেশে রোহিঙ্গারা

কক্সবাজার প্রতিনিধি: মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার দুই বছর পূর্তিতে সমাবেশ করেছে রোহিঙ্গারা। সকালে কক্সবাজাররের উখিয়া কুতুপালং ও টেকনাফে মানববন্ধন, সমাবেশ ও মিছিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে তারা।

দুপুর পর্যন্ত চলা এ কর্মসূচিতে মিয়ানমারে নির্যাতিত হওয়ার ঘটনায় ক্ষোভ জানান রোহিঙ্গারা। এসব ঘটনার বিচার, নাগরিকত্ব ও নিজের ভিটেমাটি ফেরত পাওয়াসহ নিরাপদ প্রত্যাবাসনের দাবি জানান তারা। এছাড়া, তাদের দাবি পূরণ না হলে মিয়ানমারে ফিরে যাবেন না বলেও জানানো হয় এসব কর্মসূচিতে ।

সমাবেশের শুরুতে মিয়ানমারের রাখাইনে নির্যাতনের ঘটনায় নিহতদের স্মরণে দোয়া করা হয়।

২০১৭ সালের এই দিনে মিয়ানমারের সেনা, বিজিপি, নাটালা বাহিনীর নির্যাতন ও বাড়ি-ঘরে আগুন দেয়ার মুখে বাংলাদেশে আসতে থাকে রোহিঙ্গারা। কক্সবাজারে নতুন করে আশ্রয় নেয় প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। বর্তমানে উখিয়া ও টেকনাফে স্থানীয় লোকসংখ্যা পাঁচ লাখের কিছু বেশি হলেও রোহিঙ্গা ১৩ লাখের বেশি।

মানবিক সংকটে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্ববাসীর প্রশংসা অর্জন করে বাংলাদেশ। সংকট নিরসনে কূটনৈতিক তৎপরতা শুরু করে সরকার।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার প্রত্যাবাসন চুক্তি সই হয়। একই বছর জুনে নেপিদোতে মিয়ানমার ও জাতিসংঘের সংস্থাগুলোর মধ্যেও সমঝোতা চুক্তি হয়।

গত বছরের ১৫ই নভেম্বর ব্যর্থতার পর ২২ আগস্ট প্রত্যাবাসনের দিন ঠিক থাকলেও তা শুরু হয়নি। নিরাপদে বসবাসের পরিবেশ তৈরি করেনি এমন অভিযোগে নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরতে অস্বীকৃতি জানায় রোহিঙ্গারা।

এদিকে রোহিঙ্গাদের চাপে পরিবেশ বিপর্যয় দেখা দিয়েছে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ এলাকায়। বেড়েছে অপরাধ। নোয়াখালীর ভাসানচরে স্থানান্তরের উদ্যোগও দেখছে না আলোর মুখ। বেশি সংকটে রয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

দুই বছরেও রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। তবে কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ সরকার।

এমএস


oranjee