ঢাকা, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

খুলনায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ১১৩৮ জন, মৃত্যু ৪ জনের

গ্লোবালটিভিবিডি ২:৫১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৮, ২০১৯

ফাইল ছবি

খুলনা প্রতিনিধি: খুলনায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে এক হাজার ছাড়িয়েছে রোগীর সংখ্যা। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ১৩৮জন। গত তিন দিনের হিসাবে দেখা যায়, সোমবার (৫ আগস্ট) বিভাগে ১৩৪জন, মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) ১৪০ জন এবং বুধবার নতুন করে ১৫৮ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়।

এদিকে, রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার কারণে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পৃথক ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা আইসিইউ ভবনের নিচ তলায় বুধবার থেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী নেয়া হয়েছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। তবে একশ’ শয্যার নতুন এ ওয়ার্ডেও আর কয়েকদিনের মধ্যে সংকুলান নাও হতে পারে বলে আশংকা করছেন কর্তৃপক্ষ। এজন্য হাসপাতালের চতুর্থ তলার ডেঙ্গু ওয়ার্ডে পুরাতন রোগীদের চিকিৎসা দেয়ার পাশাপাশি নতুন ওয়ার্ডে রাত ১০টা পর্যন্ত ৪২জন রোগী ভর্তি করা হয়েছে বলে খুমেক হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক(আরপি) ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস জানিয়েছেন।

খুলনার সিভিল সার্জন ডা. এএসএম আব্দুর রাজ্জাক বলেন, গত ২৪ ঘন্টায় খুলনায় নতুন করে যে ৩১জন রোগী ভর্তি হয়েছে তার মধ্যে ২৮জন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং তিনজন গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে। এছাড়া বর্তমানে চিকিৎসাধীন ১১৫জন রোগীর মধ্যে খুমেক হাসপাতালে ৮৯ জন, খুলনা জেনারেল হাসপাতালে ছয়জন, সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নয়জন, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আটজন এবং আদ্-দ্বীন আকিজ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনজন রয়েছে।

এছাড়া খুলনায় নতুন ৩১জন রোগী ভর্তি হলেও আগের ভর্তি ছিল ৮৪জন এবং এ পর্যন্ত ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ১৪৫জনকে। অর্থাৎ খুলনা জেলায় এ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ২৬০জন।

ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় এবং এর সিংহভাগই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকেও নিতে হচ্ছে বাড়তি প্রস্তুতি। ইতোমধ্যে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন চিকিৎসক টিম গঠন করেছেন বলে হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো: বেল্লাল হোসেন জানিয়েছেন। এ টিমের প্রধান করা হয়েছে মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা: এসএম কামালকে। অন্যান্য সদস্যরা হলেন, শিশু বিভাগের অধ্যাপক ডা: একেএম মামুনুর রহমান, আরপি ডা: শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিষ্টার ডা: পার্থ প্রতীম সাহা এবং রক্ত সঞ্চালন বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা: এসএম তুষার আলম। এছাড়া হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু রোগীদের সকল প্রকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা ফ্রি করারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক দপ্তরের সহকারী পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা: ফেরদৌসী আক্তার বলেন, গত চব্বিশ ঘন্টায় বিভাগের ১০ জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৫৮জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয় খুলনা ও কুষ্টিয়ায় অর্থাৎ ৩১জন করে। বাকী রোগীদের মধ্যে যশোরে ২৫ জন, সাতক্ষীরায় ১৭জন, বাগেরহাট ও মেহেরপুরে ১১জন করে, ঝিনাইদহে ১০জন, মাগুরা ও নড়াইলে নয়জন করে এবং চুয়াডাঙ্গায় চারজন রোগী নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে।

এছাড়া এ পর্যন্ত খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে চারজনের। যার মধ্যে তিনজন খুলনায় এবং একজন যশোরে। এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ১১৩৮ জন রোগীর মধ্যে খুলনায় ২৬০জন, যশোরে ২৩৭ জন, কুষ্টিয়ায় ১৯৪ জন, সাতক্ষীরায় ৯১ জন, ঝিনাইদহে ৯১ জন, মাগুরায় ৬১ জন, নড়াইলে ৫১ জন, চুয়াডাঙ্গায় ৪৪ জন, মেহেরপুরে ৩৮জন ও বাগেরহাটে ৩৫জন আক্রান্ত হয় বলেও বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর সূত্রে জানা গেছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের ওই সূত্রটি বলছে, বিগত চব্বিশ ঘন্টায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয় খুলনা ও কুষ্টিয়া জেলায় অর্থাৎ ৩১জন করে। ২৪ঘন্টায় আক্রান্তের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল যশোর অর্থাৎ ২৫জন। অন্যান্য জেলার মধ্যে সাতক্ষীরায় ১৭জন, বাগেরহাট ও মেহেরপুরে ১১জন করে, ঝিনাইদহে ১০জন, নড়াইল ও মাগুরায় নয়জন করে এবং চুয়াডাঙ্গায় চারজন নতুন করে আক্রান্ত হয়।

এমএকে/এএইচ/এমএস


oranjee