ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

পাবনায় অসহায় কৃষকদের ক্ষেতের ধান কেটে দিল ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা

গ্লোবালটিভিবিডি ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০১৯

পাবনা প্রতিনিধি : ধান কাটা নিয়ে বড় দুঃখে ছিলেন পাবনা সদর উপজেলার পাটকিয়াবাড়ি গ্রামের সুখ চাঁদ মিয়া। ধান কাটতে না পরায় চোখের সামনে ক্ষেতের পাকা সোনালী ধান বিনষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। দিন ৬০০ টাকা দিয়েও শ্রমিক পাচ্ছিলেন না। ওই গ্রামের সুখ চাদ, ফুরকান আর চাঁদ আলীরাও একই সমস্যায় ছিলেন। ছাত্রলীগের অর্ধ শতাধিক নেতা-কমী বৃহস্পতিবার (২৩ মে) এসব কৃষকের ৭টি প্লটের পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন। তারা সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত কাজ করেন।

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শিবলী সাদিক জানান, কৃষকদের ধান কাটতে সহযোগিতা করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তারপর থেকেই পাবনার ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে এসেছেন। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার তার নেতৃত্বে ৩টি টিমে ৬০ জনকে নিয়ে তারা উৎসব আমেজে সদর উপজেলার পাটকিয়াবাড়ি গ্রামে বিভিন্ন কৃষকের ধান কেটে দেন। শুক্রবার(২৩ মে) এ সংখ্যা আরও বাড়বে। এদিন পৌর ছাত্রলীগ ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা- কর্মীরা ধানকাটায় অংশ নিবেন বলে তিনি জানান। ধান বিপণন কাজেও তারা সহযোগিতা করবেন বলে জানান।

বৃহস্পতিবার সদর উপজেলার ফুরকান, চাদ আলী ও সুখ চাঁদ মিয়ার ক্ষেতের ৭টি প্লটে তারা ধান কাটেন। ধান কাটা নিয়ে দুঃখে পড়ে থাকা কৃষক সুখ চাদ এর ক্ষেতে কাস্তে নিয়ে ছাত্র নেতা- কর্মীরা হাজির হলে তিনি অবাক হয়ে যান। জানান, ‘ধান কাটা লিয়ে মহাবিপদে ছিলেম। ছাত্তররা আইসে আমাক মুহা বিপদ থিকে বাঁচালে। আমি এ্যাহন সুখী। শেখের বেটির (প্রধানমন্ত্রী) জন্য দুয়া করি।’ একই রকম অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন চাঁদ আলী আর ফুরকান। ফুরকান আলী বললেন, ‘টাকা দিলিও লেবার মিলতিচে না। আজ (বৃহস্পতিবার) আমি সাড়ে ছয়শ টাহা দিয়ে মাত্তর এটা লেবার পাইছিলাম।’

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শিবলী সাদিক আরও জানান, আমি নিজেই নেমে পড়েছি ধান কাটতে। এতে জেলার শত- শত ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী উৎসাহের সাথে এ কাজে শরিক হওয়ার কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, আমি এরই মধ্যে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছি যে, পাবনা জেলার কোথায়-কোথায় চাষিরা সমস্যায় আছে তা জানাতে। আমরা সবখানে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা হাজির হব।

বৃহস্পতিবার তার সাথে আরও ছিলেন সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান সেখ, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক ফিরোজ আলী, রাজু আহমেদ খান, সাবেক উপ- প্রচার সম্পাদক সজল, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক সাব্বির আহমেদ, এডওয়ার্ড কলেজ শাখার সহ- সভাপতি আব্দুর রহিম প্রমুখ।

জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব জানান, কৃষকের দুর্দিনে সব সময় আ’লীগ সরকার পাশে থাকে। আর কৃষক বান্ধব হিসেবে পাবনার ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা কৃষকের দুর্দিনে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে। এতে ছাত্রলীগ নেতা- কর্মীদের প্রতি জনতার শ্রদ্ধাবোধ আরও বাড়বে।

বাংলাদেশ ফামার্রস এ্যাসোসিয়েশনের (বিএফএ) কেন্দ্রীয় সভাপতি ও পাবনার শীর্ষস্থানীয় কৃষক আলহাজ্ব শাহজাহান আলী বাদশা বলেন, এটা প্রশংসনীয় কাজ। তবে এটা তাৎক্ষণিক একটা সমাধান। সুদুর প্রসারি ফলাফলের জন্য কৃষকের আর্থিক প্রণোদনা ও বিপণন সুবিধা বাড়াতে হবে।

এআইজে/এমএস


oranjee