ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

 
 
 
 

গ্লোবাল টিভি অ্যাপস

বিষয় :

ঢাকা

  • পুঠিয়া ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট সভা
  • পাবনায় পদ্মা- যমুনার তীরে বাদামের বাম্পার ফলন
  • রোহিঙ্গাদের ‘সেবা’ দিতে স্থানীয় অধিবাসীর বাড়ি উচ্ছেদ!
  • মহিপুরে ৯৬৫ জনকে বি.জি.এফ ও বি.জি.ডি'র চাল প্রদান
  • টেকনাফে আটকের পর কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাদক কারবারি নিহত 
  • সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বর্তমানে ১১৪
  • রূপপুরে কেনাকাটায় অনিয়ম: প্রকল্প পরিচালককে প্রত্যাহার

পাবনায় এসএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সঙ্গে পাস করেছে ৫ দৃষ্টি প্রতিবন্ধী

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ, মে ১৪, ২০১৯

ফাইল ছবি

পাবনা প্রতিনিধি : অন্ধত্বকে হারিয়ে এ বছরের এসএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সঙ্গে পাস করল পাবনার ৫ দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী। এই শিক্ষার্থীরা পাবনার মানবকল্যাণ ট্রাস্টের আশ্রয়ে থেকে চলতি বছর বিনা খরচে এসএসসি পরীক্ষা দেন। তারা প্রমাণ করেছেন , নিজের ইচ্ছেশক্তির কাছে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা কিছুই নয়।


পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী ও তাদের ফলাফল হ’ল- শাহাদত হোসেন জিপিএ ৪.৭২, রুহুল আমিন ৪.৪৪, গোলক মন্ডল ৪.৬৭, তোফায়েল হোসেন ৪.১১, সাইদুল ইসলাম ৩.৮৯।

শ্রুতি লেখকের সহায়তায় অন্য সব শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে তারা এই সফলতা অর্জন করে। তারা পাবনার মানবকল্যাণ ট্রাস্টের সহায়তায় পাবনা সেন্ট্রাল গার্লস হাইস্কুল কেন্দ্র থেকে মানবিক শাখায় পরীক্ষা দেন। পাবনার বিশিষ্টজনরা অন্ধ এই ৫ শিক্ষার্থীর সফলতাকে অভিনন্দন জানিয়েছে। তারা এই শিক্ষার্থীদের সহায়তা করতে সামর্থ্যবানদের এগিয়ে আসার আহ্বানও জানিয়েছে।

এসএসসি পাস করা শাহাদত হোসেন বলেন, ‘অন্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে শ্রুতি লেখকের সহায়তায় একই প্রশ্নে আমাদের পরীক্ষা দিতে হয়। অনেক সময় আমরা সঠিক বলে দিলেও শ্রুতি লেখক লিখতে ভুল করে বসে। এতে মার্কস কমে যায়। আমি শিক্ষার আলোয় আলোকিত হয়ে দেশের সব অন্ধ মানুষকে সাহায্য করতে চাই।’

পাবনা মানবকল্যাণ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. আবুল হোসেন বলেন, ‘অন্ধদের লেখাপড়ার জন্য প্রয়োজন ব্রেইল পদ্ধতি। অথচ দেশের অধিকাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ সুযোগ নেই। এখন পরীক্ষার জন্য প্রয়োজন শ্রুতি লেখকের। দরিদ্র এসব অন্ধদের শ্রুতি লেখকের সম্মানী তো দূরের কথা, লেখাপড়ার করার ন্যূনতম আর্থিক ব্যয় নির্বাহ করারও সক্ষমতা নেই। তারপরও থেমে থাকেনি এসব সংগ্রামী দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীর শিক্ষাজীবন।’

আবুল হোসেন আরো বলেন, এই ৫ জন পরীক্ষার্থীর মতো আরো ১২ জন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী পাবনার মানবকল্যাণ ট্রাস্ট থেকে ব্রেইল পদ্ধতিতে লেখাপড়া করে এইচ এসসি পরীক্ষা দিয়েছেন।

পাবনার বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ (অব:) আলহাজ্ব মাহাতাব উদ্দিন বিশ্বাস বলেন, ‘এসব অন্ধ শিক্ষার্থীদের চ্যালেঞ্জকে আমাদের সহায়তা করা উচিত। তাদের এই ফলাফল প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য। মানবকল্যাণ ট্রাস্টকে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়া হলে সারা দেশের দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের সর্বোৎকৃষ্ট শিক্ষালয় হিসেবে গড়ে উঠতে পারে।’

পাবনার জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় অন্ধ শিক্ষার্থীদের ফলাফল আশাব্যঞ্জক। এদের জন্য সরকার সম্ভাব্য সব সহায়তা করবে।’

 

এআইজে/আরকে


oranjee