ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯ | ১১ মাঘ ১৪২৫

 
 
 
 

গ্লোবাল টিভি অ্যাপস

বিষয় :

ঢাকা

ঈদের দিনেও পর্যটক

চার লক্ষ পর্যটকের অপেক্ষায় পর্যটনগরী কক্সবাজার

ঈদ মৌসুমের জন্য নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা

গ্লোবালটিভিবিডি ৪:০২ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০১৮

পর্যটনগরী কক্সবাজার পুরোপুরি প্রস্তুত ঈদের ছুটিতে এখানে ভ্রমণেচ্ছু পর্যটককে গ্রহণ করতে

জসিম উদ্দিন জিহাদ, কক্সবাজার: অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত ও দেশের অন্যতম পর্যটনগরী কক্সবাজার পুরোপুরি প্রস্তুত ঈদের ছুটিতে এখানে ভ্রমণেচ্ছু পর্যটককে গ্রহণ করতে। ঈদের মৌসুমে এবার ৪ লাখ পর্যটক আসার কথা রয়েছে। এসব পর্যটকদের নিরাপত্তায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এদিকে, ঈদের দিন অনেক পর্যটকই কক্সবাজারে ঘুরতে এসেছেন ছুটি কাজে লাগাতে। 

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত

কক্সবাজারে ইতিমধ্যে ছোট-মাঝারি-বড়, সব মিলিয়ে ৪’শর মতো হোটেল, কটেজ ও রিসোর্ট বুকিং হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার (২৩ আগস্ট) থেকে টানা দশ দিন এসব হোটেলে নতুন করে কোনো ধরনের রুম বুকিং দেওয়ার সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন হোটেল মালিকরা।

হিমছড়ি ঝর্ণা

কক্সবাজারে ভ্রমণেচ্ছু পর্যটকদের বরনে পুরোপুরি প্রস্তুত রয়েছে। দর্শনীয় সব জায়গাগুলো বিভিন্নভাবে সাজানো হয়েছে। সব ধরনের হোটেলগুলো এমনভাবে রং করে সাজানো হয়েছে যে, চেহারা দেখে বোঝার উপায় নেই কোনটা নতুন আর কোনটা পুরাতন হোটেল। বদলে গেছে বীচের বিশ্রাম নেওয়া ছাতাগুলোও। সব ছাতা বিভিন্ন কোম্পানি নিজেদের প্রচারের জন্য কোম্পানির সীলমোহর লাগিয়ে নতুন করে লাগিয়েছেন। এই ছাতা সেবা বিনামূল্যে পাবে পর্যটকরা।

নয়নাভিরাম মেরিন ড্রাইভ

এ বছর বেড়েছে দর্শনীয় স্পট। হিমছড়ির পাহাড়, ঝর্ণা, পাথুরে সৈকত ইনানী, রামুর বৌদ্ধ বিহার ও দীর্ঘ মেরিন ড্রাইভ সড়কের মনোরম দৃশ্য ছাড়াও নতুন যোগ হয়েছে একুরিয়াম ফিস ওয়ার্ল্ড।

নতুন যোগ হয়েছে পাটুয়ার টেক নামে নতুন একটি স্পট। যেটা মেরিন ড্রাইভের পাশেই। পাথুরে এই দ্বীপটি সাগরের বুক থেকে নতুন জেগেছে। আর এই নতুন দ্বীপকে সাজিয়েছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক)।

হোটেল লং বীচ

যে পরিমাণ হোটেল বুকিং রয়েছে তাতে ঈদ মৌসুমে এবার ৪ লাখ পর্যটক আসতে পারে বলে হোটেল ও কটেজ মালিক সমিতি আশা করছে। কটেজ মালিক সমিতির সভাপতি কাজী রাসেল গ্লোবাল টিভি অনলাইনকে বলেন, এ বছর রেকর্ড সংখ্যক পর্যটক আসবে বলে আমরা ধারণা করছি। পর্যটকদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে সবধনের ছোট বড় কটেজ রিসোর্টগুলোতে ইতিমধ্যে সিসি ক্যামরার আয়ত্তে আনা হয়েছে। মাদকাসক্ত ও মাদক কারবারিরা যাতে হোটেল, কটেজ রিসোর্টগুলোর আশপাশে ঘুরাঘুরি করতে না পারে সে দিকে থাকবে আমাদের চোখ।

হোটেল ওশান প্যারাডাইস

কক্সবাজারে সীগাল, লংবীচ, সায়মন, সী প্লেস, ওশান প্যারাডাইস সহ পাঁচ তারকা হোটেলগুলোর বেশিভাগই মাসব্যাপি বুকিং হয়ে গেছে।

হোটেল সীগাল

হোটেল সীগালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুমি আহম্মদ গ্লোবাল টিভি অনলাইনকে বলেন, সীগালে এক মাসের আগে বুকিং নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই, শুধু হাতে গোনা কয়েকটা রুম হয়তো তারা হাত বদলাতে পারবে।

তিনি বলেন, এবছর নির্বাচনের আগেই আমাদের বড় হোটেলগুলোর একটা টার্গেট আছে যা আমরা পুরণ করতে না পারলে ২০১৪ সালের মতোই হবে তাই আমরা সবাই সর্তক।

রামু বৌদ্ধ বিহার

খাবার হোটেল-রোস্টুরেন্ট ও পর্যটক সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরাও আশা করছেন, টানা ছুটিতে জমজমাট হবে পর্যটন ব্যবসা।

হোটেল সী প্লেস

ঈদের ছুটিতে বিপুল সংখ্যক পর্যটক আগমনের কথা মাথায় রেখে নিরাপত্তার জন্য বেশ কিছু পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে লাইফগার্ড কর্মী ও ট্যুরিস্ট পুলিশ। কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার ফজলে রাব্বী প্রথমে পর্যটকদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে গ্লোবাল টিভি অনলাইনকে বলেন, ঈদ মৌসুমে সৈকত এলাকা সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে থাকবে।  সাগরে যাতে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে সেজন্য আমাদের টহল টিম ২৪ ঘন্টা উপস্থিত থাকবে। এ  বিষয়ে কোনো ধরনের ঝুকি নিতে চান না বলেও জানান তিনি। এজন্যই নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

কক্সবাজার সি-সেইভ লাইফ গার্ডের ইনচার্জ রশীদ আহমেদ বলেন, এই মৌসুমে সৈকতে বিপুল পরিমান লাইফ গার্ডের সদস্য উপস্থিত থাকবে। পর্যটকদের জীবন রক্ষার্থে আমরা সবসময়ই নিয়োজিত থাকবো।

এদিকে, বুধবার (২২ আগস্ট) ঈদের প্রথম দিন কক্সবাজারের বিভিন্ন দর্শনীয় জায়গাগুলোতে বেশ  কিছু পর্যটককে বেড়াতে দেখা গেছে। ছুটি থাকায় এবং ভিড় এড়াতেই তারা একটু আগেই চলে এসেছেন বলে জানা গেছে।

পরিবারের সঙ্গে সবার পেছনে দাঁড়ানো শামীম ও জুঁই দম্পতি

শামিম ও জুঁই দম্পতি বাগেরহাট থেকে বেড়াতে এসেছেন কক্সবাজারে। তারা দুজনেই চাকরিজীবী। সময় বাঁচাতে একটু আগেই এসেছেন বলে জানান তারা। সঙ্গে পরিবারের অন্য সদস্যরাও এসেছেন। জুঁই বলেন, আমাদের বিয়ে হয়েছে নতুন। হানিমুনের জন্যই মূলত এখানে আসা। যেহেতু দুজনই চাকরি করি তাই ঈদের ছুটিতেই হানিমুনটা এখানে করতে এসেছি।

 

এসএনএ


oranjee