ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

 
 
 
 

তবে কি এখানেই পথ শেষ আইয়ুব বাচ্চুর প্রাণের দল এলআরবি’র!

সৈয়দ নূর-ই-আলম ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০১৮

ফাইল ছবি

বাংলাদেশের ব্যান্ডসঙ্গীতের অন্যতম প্রধান দল এলআরবি পথ চলার ২৮ বছর পার করছে চলতি বছর। এ দীর্ঘ পথ চলাতে শ্রোতাদের গানে গানে মাতিয়ে রেখেছে দলটি। উপহার দিয়েছে অসংখ্য শ্রোতাপ্রিয় অ্যালবাম আর একক গানসহ দূর্দান্ত সব স্টেজ প্রোগ্রাম। শিল্পীকে কাছে দেখে তোর গানে গানে ভেসে যেতে এসব স্টেজ আয়োজনগুলোর অন্যতম পুরোধা দল এলআরবি। শ্রোতাদের মাতিয়ে রেখেছে এলআরবি। এই দলের প্রাণ ভোমরা ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। যিনি বাংলাদেশের ব্যান্ডসঙ্গীতে অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব।

১৯৭৮ সালের ফিলিংস ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম এই গানের মানুষ পরবর্তীদের গঠন করেন সোলস ব্যান্ড। এখানেও তিনি ছিলেন প্রধান মানুষ। তারপর তার হাত ধরে আসে এলআরবি। নতুন অধ্যায়ের শুরু হয় তখন থেকে। মনে রাখার মতো এমন অনেক গান এসেছে এই ব্যান্ডের কাছ থেকে।

আইয়ুব বাচ্চু। ছবি: সংগ্রহ

ব্যান্ডজগতের অন্যতম সেরা সংগঠক গানের মানুষ এবং গিটারের জাদুকর আইয়ুব বাচ্চুর অকাল প্রয়াণ হয়েছে সদ্য। তার মৃত্যুতে শোকাহত পুরো দেশ। শোকাচ্ছন্ন পুরো গানের জগৎ। অভিভাবকশূন্য ব্যান্ড ঘরানা, অভিভাবক শূন্য তার প্রিয় দল এলআরবি।

আইয়ুব বাচ্চুর নেতৃত্বে ১৯৯১ সালের ৫ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যান্ড হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিল লাভ রানস ব্লাইন্ড যা সংক্ষেপে এলআরবি। শুরুর দিকে দলের লাইনআপে ছিলেন ব্যান্ডটির দলনেতা, ভোকাল ও গিটারিস্ট আইয়ুব বাচ্চু, বেইজে স্বপন, ড্রামসে জয় ও কি-বোর্ডে এসআই টুটুল। এক সময় জয়ের স্থলাভিষিক্ত হন মিল্টন। দুই বছর পর মিল্টন পাড়ি জমান লন্ডনে। তার জায়গায় আসেন রিয়াদ। ২০০২ সালে এস আই টুটুল ব্যান্ড থেকে বেরিয়ে গেলে স্থায়ী কোনো কি-বোর্ডিস্ট ছাড়াই গান চালিয়ে যায় ব্যান্ডটি। সে বছরই এলআরবিতে গিটারিস্ট হিসেবে বাজাতে শুরু করেন মাসুদ। মাঝে অতিথি হিসেবে অনেকে বাজিয়েছেন। রিয়াদ অসুস্থ হলে তার স্থলে বাজিয়েছেন সুমন। সুস্থ হয়ে ফিরলেও কিছুদিন পর যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান রিয়াদ। তার জায়গায় ২০০৬ সালে ড্রামসের হাল ধরেন রোমেল। ১৬ বছর ধরে এ লাইন আপ নিয়েই চলছে এলআরবি। মাঝে মধ্যে ব্যান্ডটির সঙ্গে অতিথি হিসেবে পারফর্ম করতে দেখা যায় আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে আহনাফ তাজওয়ার আইয়ুবকে।

আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে আহনাফ তাজওয়ার আইয়ুব। ছবি: সংগ্রহ

এলআরবি বর্তমান লাইনআপ নিয়ে ভালোই চলছিল দলটির গানের আয়োজনগুলো। কিন্তু হঠাৎ আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুতে অন্ধকারের পথে যাত্রা করলো দলটি। আদৌ কি? তবে কি আইয়ুব বাচ্চু ছাড়া পথ শেষ হয়ে গেল এলআরবির? এলআরবির ভক্তদের মধ্যে নিশ্চয়ই প্রশ্নটা উকিঁঝুঁকি মারছে। ভক্তরা ছাড়াও দেশের অন্য ব্যান্ডগুলোও কাছেও জিজ্ঞাসা রয়েছে এ বিষয়টা নিয়ে যে, কে হচ্ছেন এলআরবি’র পরবর্তী কাণ্ডারি?

এলআরবি হাল কে ধরবে-এমন প্রশ্নের সরাসরি একটা উত্তর আছে। সেটা হলো আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে আহনাফ তাজওয়ার আইয়ুব। আহনাফকে ব্যান্ডশিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চেষ্টাও করেছেন আইয়ুব বাচ্চু। বিভিন্ন লাইভ প্রোগ্রামে সঙ্গে রাখার পাশাপাশি একক শোও করিয়েছেন তাকে দিয়ে। কিন্তু আদৌ কি তিনি নিজেকে প্রমাণ করতে পেরেছেন- এটা নিয়ে দেশের ব্যান্ড অঙ্গনে অনেকের মধ্যে আলোচনা আছে।

দলকে ধরে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মতো কেউ কি আছেন আইয়ুব বাচ্চুর দলে? যারা আছেন তারা বাচ্চুর যোগ্য সহকর্মী কিন্তু দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কারও উপর নির্ভর করতে পারেননি তিনি। তাহলে কে ধরবে আইয়ুব বাচ্চু পরবর্তী এলআরবি’র হাল?

শুভান্যাধ্যায়ীরা অবশ্য সবাই চাইছেন আইযুব বাচ্চুর ছেলে এলআরবির হাল ধরুক। আর দলের অন্য সদস্যরা তাকে সঙ্গ দিক ওতপ্রোতভাবে। কেননা তারা কেউ চাইছেন না আইয়ুব বাচ্চুর প্রাণের দল ২৮ বছর পথ চলার পর থেমে যাক।

২ বছরে মোট ১৫টি একক অ্যালবাম প্রকাশ করেছে এলআরবি। তাদের সর্বশেষ একক অ্যালবাম ‘রাখে আল্লাহ মারে কে’ প্রকাশিত হয় ২০১৬ সালে। এই দীর্ঘ সময় ধরে এলআরবি বেশ কিছু জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছে শ্রোতাদের। তাদের উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে- ‘সেই তুমি’, ‘মাধবী’, ‘হকার’, ‘রূপালি গিটার’, ‘ফেরারী মন’, ‘এখন অনেক রাত’, ‘ঘুম ভাঙা শহরে’, ‘নীল মলাট’, ‘অপরিচিতা’, ‘রাখে আল্লাহ মারেকে’, ‘তারা ভরা রাতে’, ‘ভাঙা মন নিয়ে তুমি’, ‘যুদ্ধ’, ‘বাংলাদেশ’ ইত্যাদি। এক সময় শ্রোতাদের মুখে মুখে ছিল গানগুলো। নব্বইয়ের দশকের শুরুতে ‘মাধবী’ ও ‘হকার’ নামে প্রকাশিত হয়েছিল এলআরবি ব্যান্ডের ডাবল অ্যালবাম।

এমন সব জনপ্রিয় গান যে দলের ঝুলিতে আছে সেই দল কি থেমে যেতে পারে? দলটির সাথে দেশের লাখ লাখ শ্রোতার ভালোবাসা জড়িয়ে গেছে। সেই ভালোবাসার দলটির পথ চলা থেমে যেতে পারে না। আইয়ুব বাচ্চুর হাতে গড়া এই দলের যাত্রা আজীবন চলুক এটাই প্রত্যাশা তার ভক্তদের। অন্তত ব্যান্ডের কিংবদিন্ত আইয়ুব বাচ্চুর ভালোবাসার নজির হয়ে বেঁচে থাক তার দল এলআরবি।

 

এসএনএ

 অাইয়ুব বাচ্চুর একটি জনপ্রিয় গান ‘সেই তুমি’। গানটির লিরিক্যাল ভিডিওর লিঙ্ক:


oranjee