ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

নিয়মিত বিরতীতে উইকেট পড়ায় বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:৪০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম টেস্ট জিততে হলে অসাধ্য সাধন করতে হবে বাংলাদেশকে। ইতিহাস গড়ে জিততে হবে তাদের। কারণ, এর আগে এত রান তাড়া করে জেতার কীর্তি নেই টাইগারদের। সেই যাত্রায় পদে পদে ধাক্কা খাচ্ছেন তারা। কেউই মাজা সোজা করে ক্রিজে দাঁড়াতে পারছেন না। ইতিমধ্যে ৪ ব্যাটসম্যান ফিরে গেছেন প্যাভিলিয়নে। এ রিপোর্ট লেখা অবধি ৮৬ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। উইকেটে আছেন সাদমান ইসলাম (৩৩) ও সাকিব আল হাসান (৪)।

চতুর্থ ইনিংসে ২১৫ রানের বেশি তাড়া করে কখনো জেতেনি বাংলাদেশ। এ মাঠে সর্বোচ্চ ৩১৭ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড আছে নিউজিল্যান্ডের। সেখানে ৩৯৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মন্থর করেন সাকিব বাহিনী। বিনা উইকেটে ৩০ রান নিয়ে লাঞ্চে যান তারা। তবে বিরতি থেকে ফিরেই হোঁচট খান টাইগাররা। জহির খানের এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন লিটন দাস। সেই রেশ না কাটতেই জহিরের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরত আসেন মোসাদ্দেক হোসেন।

পরে ক্রিজে এসে নির্ভরতার পরিচয় দিতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। ধারাবাহিক বিরতিতে রশিদ খানের এলবিউব্লিউ হয়ে ফেরেন তিনি। খানিক পরই তার বলে একইভাবে আউট হয়ে ফেরেন মুমিনুল হক। মূলত এখানেই ব্যাকফুটে চলে যায় বাংলাদেশ।

আলোক স্বল্পতার কারণে কিছুক্ষণ আগে শেষ হয় তৃতীয় দিনের খেলা। ফলে চতুর্থ দিন ২০ মিনিট আগে তা শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ে খেলা গড়ানো সম্ভব হয়নি। অবশেষে ১১টা ৫০ মিনিটে শুরু হয়।

৮ উইকেটে ২৩৭ রান নিয়ে নতুন দিনের খেলা শুরু করে আফগানিস্তান। আফসার জাজাই ৩৪ এবং শূন্য রান নিয়ে ইয়ামিন আহমেদজাই ব্যাটিংয়ে নামেন। তবে দলীয় স্কোর বোর্ডে খুব বেশি রান যোগ করতে পারেননি আফগানরা। ২৬০ রানেই গুটিয়ে যান তারা। এ রানে রানআউটে কাটা পড়েন ইয়ামিন। পরক্ষণেই মিরাজের শিকার হন জহির। তিনি কোনো রান যোগ করতে পারেননি। আফসার ৪৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

ফলে ৩৯৭ রানের লিড পায় সফরকারীরা। এতে একমাত্র টেস্টের নাটাই হাতে নেন তারা। নিজেদের প্রথম ইনিংসে স্বপ্নের মতো ব্যাটিং করে আফগানিস্তান। রহমত শাহর ইতিহাস গড়া সেঞ্চুরিতে তোলে দলীয় সর্বোচ্চ ৩৪২ রান। জবাবে প্রথম ইনিংসে হতশ্রী পারফরম্যান্স দেখায় বাংলাদেশ।২০৫ রানে গুটিয়ে যায় তারা।

আরকে

 


oranjee