ঢাকা, শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

স্মার্টফোনে শিং গজাচ্ছে মানুষের?

গ্লোবালটিভিবিডি ৫:১৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৩, ২০১৯

সংগৃহীত ছবি

স্মার্টফোনে শিং গজাচ্ছে মানুষের? বদলে যাচ্ছে করোটির আকার আকৃতি। আর এইসব কিছুর জন্যই গবেষকরা দায়ী করছেন স্মার্ট ফোনকে।

আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান পত্রিকায় এ ব্যাপারে লিখেছেন দুই বায়োমেকানিকস বিজ্ঞানী। অস্ট্রেলিয়ার কুইনসল্যান্ডের সানশাইন কোস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই গবেষকের এত প্রতিবেদন নেচার পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে ‘আধুনিক জীবন যেভাবে মানুষের করোটিতে বদল ঘটাচ্ছে’ শিরোনামে।

প্রতিবেদনে লেখা হয়, মানুষের আধুনিক জীবন প্রায় পুরোটাই স্মার্ট ফোন কেন্দ্রিক বা হাতে ধরে কাজ করা যায়, এমন যন্ত্রের উপর নির্ভরশীল হয়ে উঠছে। তাতে এই শিং গজানোর প্রবণতা আরও বাড়ছে। অবশ্য শিংওয়ালা মানুষ বলতে ন’য়ের দশকের যে টিভি বিজ্ঞাপনের কথা মনে পড়ে, মোটেই তেমন দেখতে লাগবে না আমাদের। কারণ, এই শিং গজানোর সম্ভাবনা একটিই। আর শিংটি গজাবেও মাথার পিছন দিকে আমাদের ঘাড় আর মাথার ঠিক মাঝখানে।

স্মার্টফোন হোক বা ট্যাবলেট কিংবা নোটপ্যাড, সব ক্ষেত্রেই প্রযুক্তি ব্যবহারের সময় ঘাড় নিচু হয়ে থাকে আমাদের। সেই ভার বইতে হয় ঘাড় আর মাথার মাংসপেশীকে। আর ঠিক এই সমস্যা থেকেই অভিযোজনে মাথার ভার রাখতে একটি বিকল্প হাড় গজাচ্ছে ঘাড়ের ঠিক উপরে। চিকিৎসার পরিভাষায় আপাতত এই ধরনের হাড় গজানোকে ‘টেক্সট নেক’ বলা হচ্ছে। শিংয়ের মতো যে হাড়টির জন্য ওই সমস্যা তৈরি হবে, তার দৈর্ঘ্য খুব বেশি হলে হবে ১০ মিলিমিটার। স্মার্টফোনের প্রভাবে এটি দ্বিতীয় হাড়ের অসুখ। এর আগে ‘টেক্সট থাম্ব’-এর শিকার হয়েছেন বা এখনও হচ্ছেন অনেক রোগীই। ভেবে দেখুন তবে কেমন দেখতে লাগবে সেই শিংওয়ালা মানুষদের!

এএইচ/এমএস


oranjee