ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

 
 
 
 

গ্লোবাল টিভি অ্যাপস

বিষয় :

ঢাকা

  • তসলিমা নাসরিনও প্রতিবাদে শামিল হলেন এই টিশার্ট পরে
  • যে কারণে নায়ক সাইমন থাকতে পারেননি টেলি সামাদের জানাজায়
  • কোম্পানি না নিজেই প্রকাশ করবেন নিজের গান?
  • সুস্থ আছেন ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ‘বিদায়’ জানানো সেই রিপন
  • ইন্দোনেশিয়ার বালিতে ঘোড়ার পিঠে পরীমনি
  • ব্যর্থতার দায় এখন সাধারণ বিমান যাত্রীদের নিতে হচ্ছে
  • স্টার কাবাবের ফালুদায় টিনের শক্ত ধাতব বস্তু

যুগান্তরকে ঘিরে মিডিয়ায় আবাসন ব্যবসায়ীদের দাপট

হেলাল উদ্দীন ৩:১৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ০৪, ২০১৯

মিডিয়ায় এখন আবাসন ব্যবসায়ীদেরই দাপট। এটা সত্য, মূলত দৈনিক যুগান্তরকে ঘিরেই পরিকল্পিত এই আগ্রাসন। যমুনা গ্রুপের সঙ্গে বসুন্ধরার বিরোধ দীর্ঘদিনের। যদিও এখন বন্ধুত্বপূর্ণ সহঅবস্থান। তবে আছে টানাপোড়েন। এক সময়ে যুগান্তরের একচেটিয়া আক্রমনে নাস্তানাবুধ হয়েছে বসুন্ধরার কর্ণধাররা। এরই ধারাবাহিকতায় মিডিয়ায় প্রবল আধিপত্য নিয়ে আগমন বসুন্ধরা গ্রুপের।

সাংবাদিকতার প্রতিটি ধাপেই এখন বসুন্ধরার প্রবল প্রতাপ। দিন দিন তা আরো বাড়ছে। দৈনিক কালের কন্ঠ, বাংলাদেশ প্রতিদিন, নিউজ টোয়েন্টি ফোর টিভি, বাংলানিউজ টুয়েন্টি ফোর ডট কম, রেডিও কেপিটাল, ডেইলি সানসহ আরো কতকি? বাংলা ইংরেজি, প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক্স, অনলাইন সব খাতেই দিনদিন দাপট বাড়ছে।

এখন আবার বসুন্ধরার সাথে যোগ দিয়েছে রূপায়ন গ্রুপ, আমিন মোহাম্মদ ফাউন্ডেশন, ইউনিক গ্রুপ আর মাগুরা গ্রুপ। বসুন্ধরার মত এসব গ্রুপের কর্ণধাররাও এক সময়ে যুগান্তরের কারণে কমবেশি হেনস্থা হয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। লক্ষ্যনীয় যে, এদের সবাই আবাসন ব্যবসায় জড়িত। সবাই সমাজে প্রতাপশালী।

ব্যবসায়ী নুর আলীর 'দৈনিক আমাদের সময়' এখন ভাল অবস্থানে। মাগুরা গ্রুপের বাংলা ইংরেজি একাধিক মিডিয়া যদিও এখন পর্যন্ত সাফল্য দেখাতে পারেনি। তবে ডিসেম্বরের শেষ দিকে প্রকাশিত রূপায়নের 'দৈনিক দেশ রূপান্তর' সীমিত জনবল নিয়েই ধীরে ধীরে মানসম্মত অবস্থানে এগুচ্ছে। সম্পাদক অমিত হাবিবের কেরিশমাই এর কারণ। এখন পর্যন্ত পত্রিকাটি ভাল করছে। পাশাপাশি রূপায়ন গ্রুপ রেডিও, টিভিতেও আধিপত্য বাড়াচ্ছে। সামনে আসছে ইংরেজি দৈনিক। সর্বশেষ যুগান্তরের সাবেক উপসম্পাদক রফিকুল ইসলাম রতনের সম্পাদনায় এ সপ্তাহে বাজারে এসেছে আমিন মোহাম্মদ ফাউন্ডেশনের দৈনিক সময়ের আলো। আবাসন ব্যবসায়ীদের বাইরে যুগান্তরে ক্ষতিগ্রস্থ প্রাণ গ্রুপও মিডিয়ায় বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে। অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগো নিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম খুবই জনপ্রিয়। আসছে দৈনিক জাগো বাংলা।

যুগান্তরকে ঘিরে মিডিয়া জগতের এই শক্ত বলয় দিন দিনই শক্তিশালী হচ্ছে। কিন্তু সে তুলনায় অনেক পিছিয়ে আছে যমুনা গ্রুপ। যমুনা টিভি ভাল করছে। এছাড়া নেই পরিকল্পিত কোন প্রয়াস। যদিও ইংরেজি দৈনিকের পরিকল্পনা আছে। নিন্দুকেরা বলছে, আবার যদি বিরোধ সৃষ্টি হয়, এ যুদ্ধে কে জিতবে?

 

লেখক: জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক


oranjee