ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

রংপুর-৩ আসনে এস এম ইয়াসিরকে মনোনয়ন দিলো জাপা

গ্লোবালটিভিবিডি ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৯

ছবি সংগৃহীত

রংপুর-৩ আসনের উপ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহসচিব এস এম ইয়াসিরকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। শুক্রবার রাতে এই তথ্য গণমাধ্যমকে জানানো হয় ।

উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক তিনজন শুক্রবার দলের পার্লামেন্টারি বোর্ডের কাছে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। তারা হলেন- প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরউজ্জামান জাহাঙ্গীর, রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির ও পার্টির নির্বাহী সদস্য আবদুর রাজ্জাক।

এর আগে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি বলেছেন, পার্টির প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ জীবিত থাকা অবস্থায় চেয়ারম্যান হিসেবে জিএম কাদেরকে মনোনয়ন দিয়ে গেছেন। তাই গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তিনিই জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান।

পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে শুক্রবার বিকালে প্রেসিডিয়াম ও সংসদ সদস্যদের যৌথসভা চলাকালে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। যৌথসভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, ‘জাতীয় পার্টি গঠনতন্ত্র মোতাবেক চলে, এর বাইরে কারও কিছু করা সম্ভব নয়। একজন সিনিয়র সদস্য আরেকজনকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করেছেন- এটি গঠনতন্ত্রবিরোধী। চেয়ারম্যান (এরশাদ) জীবদ্দশায় যেহেতু বলে গেছেন, তাই জিএম কাদেরই দলের চেয়ারম্যান। এখানে বিভ্রান্তির কোনো সুযোগ নেই।’

তিনি বলেন, ‘দলের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া অপরাধ। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রের ধারা ২০ উপধারা ১(ক)-এ স্পষ্টভাবে বলা আছে, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান যে কোনো পদে যে কোনো ব্যক্তিকে নিয়োগ দিতে পারবেন, যে কোনো ব্যক্তিকে অপসারণ করতে পারবেন এবং যে কোনো ব্যক্তিকে তার স্থলে স্থলাভিষিক্ত করতে পারবেন। তার মানে চেয়ারম্যান তার নিজ অবস্থানে যে কাউকে চেয়ারম্যান করতে পারবেন।’

ফিরোজ রশীদ বলেন, ‘১৭ আগস্ট প্রেসিডিয়ামের সভা হয়েছিল, সেখানে ৩৪ জনের মধ্যে ২৬ জন বক্তব্য রেখেছিলেন। তারা বলেছিলেন, পার্টির যিনি চেয়ারম্যান, তিনি হবেন পার্লামেন্টের বিরোধী দলের নেতা। সেই রেজুলেশনের ভিত্তিতে সংসদ সদস্যদের ডেকেছিলাম। সেখানে ১৫ সংসদ সদস্য জিএম কাদেরকে মনোনয়ন দিয়ে সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। সে অনুযায়ী আমরা স্পিকারকে চিঠি দিয়েছিলাম।’

সাংবাদিকদের ব্রিফ করার সময় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী সালমা ইসলাম এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা, সুনীল শুভরায়, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রেসিডিয়াম ও সংসদ সদস্যদের যৌথসভায় ছিলেন- কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, গোলাম কিবরিয়া টিপু এমপি, আলহাজ সাহিদুর রহমান, অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি, সৈয়দ মোহাম্মদ আবদুল মান্নান, মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা), হাবিবুর রহমান, সুনীল শুভরায়, মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, পীরজাদা শফিউল্লাহ আল মনির, লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ফখরুজ্জামান জাহাঙ্গীর, সৈয়দ দিদার বখত, কাজী মামুনুর রশীদ, জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, নাজমা আখতার এমপি, আবদুস সাত্তার মিয়া, আলমগীর সিকদার লোটন, এমরান হোসেন মিয়া, মেজর (অব.) রানা মোহাম্মদ সোহেল রানা এমপি, সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমান ও নুরুল ইসলাম তালুকদার।

এএইচ

 


oranjee