ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৫ কার্তিক ১৪২৬

 
 
 
 

আল মাহমুদের ‘প্রার্থিত’ তিরোধান

গ্লোবালটিভিবিডি ৫:৩৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৯

কবি আল মাহমুদ। ছবি: সংগ্রহ

আতিক হেলাল:

কোনো এক ভোরবেলা, রাত্রিশেষে শুভ শুক্রবারে
মৃত্যুর ফেরেস্তা এসে যদি দেয় যাওয়ার তাকিদ;
অপ্রস্তুত এলোমেলো এ গৃহের আলো অন্ধকারে
ভালোমন্দ যা ঘটুক মেনে নেবো এ আমার ঈদ।
ফেলে যাচ্ছি খড়কুটো, পরিধেয়, আহার, মৈথুন—
নিরুপায় কিছু নাম, কিছু স্মৃতি কিংবা কিছু নয়;
অশ্রুভারাক্রান্ত চোখে জমে আছে শোকের লেগুন
কার হাত ভাঙে চুড়ি? কে ফোঁপায়? পৃথিবী নিশ্চয়।
স্মৃতির মেঘলাভোরে শেষ ডাক ডাকছে ডাহুক
অদৃশ্য আত্মার তরী কোন ঘাটে ভিড়ল কোথায়?
কেন দোলে হৃদপিণ্ড, আমার কি ভয়ের অসুখ?
নাকি সেই শিহরণ পুলকিত মাস্তুল দোলায়!
আমার যাওয়ার কালে খোলা থাক জানালা দুয়ার
যদি হয় ভোরবেলা স্বপ্নাচ্ছন্ন শুভ শুক্রবার
(স্মৃতির মেঘলা ভোর, আল মাহমুদ)

হ্যাঁ, তাঁর প্রার্থিত এক শুক্রবারেই চির বিদায় নিতে পারলেন তিনি। এও বা কম কিসের? বাংলাদেশের একজন দেশপ্রেমিক নাগরিক, রণাঞ্গণের মুক্তিযোদ্ধা এবং এই উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবির প্রার্থিত শীতল-শান্ত মৃত্যু পরে দেহ আশ্রয় পেয়েছে তাঁর নিজভূমে। যে মাটি ও মানুষই ছিলো তাঁর কবিতা ও শব্দগাঁথুনির প্রধান উপজীব্য, সেই গ্রামের শ্যামল মাটিতেই অন্তিম শয়ানে শায়িত হবেন মাটির কবি আল মাহমুদ।

ঢাকাকে যিনি বাংলা কবিতার রাজধানী ঘোষণা করেছিলেন, সেই কবি আল মাহমুদের সমাধিস্থল রাজধানীতে হোক, সেটি চেয়েছিলেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা এবং তাঁর ভক্ত-অনুসারীরা। কিন্তু সংকীর্ণ রাজনীতির ঘেরাটোপ থেকে বের হয়ে আসার সময় এখনও হয়নি আমাদের। তাইতো তার আশ্রয় ঘটেছে গ্রামের শীতল ছায়ায়।

ভালো থাকুন, প্রিয় কবি, প্রিয় কথাকার আল মাহমুদ। তবে, মহান রাব্বুল আলামীনের ডাকে আপনার শারীরিক মৃত্যু ঘটলেও আপনার প্রতিটি মুহূর্ত, আপনার প্রতিটি কবিতা, আপনার প্রতিটি শব্দ চিরিকাল বেঁচে থাকবে এই ভূখণ্ডে, এই কবিতা-গানের আলো-বাতাসে। আপনাকে বিস্মৃত হওয়া কিংবা আপনাকে মুছে ফেলার সাধ্য আমাদের নাই। এখানেই আপনার সার্থকতা, শক্তিমান কবি আল মাহমুদ।

শেষে আজকের প্রথম আলো অনলাইন থেকে কিছুটা-
“আজ আকাশ মেঘলা আর আল মাহমুদ নেই। কাবিনবিহীন হাতে মহাকাল স্পর্শ করতে চলেছেন এখন তিনি। রাত্রিশেষে কোনো শুভ শুক্রবারে তিনি বিদায় নিতে চেয়েছিলেন।...আজ শনিবার ভোরে আকাশ মেঘলা। কবি তাঁর শেষ কল্পনা মাখিয়ে দিলেন আকাশে, চরাচরে, বাংলা ভাষাভাষীদের মনে। আজ নিখিল বাংলা শোক করুক। ভাষার প্রিয়তম সন্তানের জন্য, কবিতার সন্তপুরুষের জন্য শোক করুক। তাঁর শেষ ইচ্ছা পূর্ণ হয়েছে। মৃত্যুর লোবানমাখা সেই কবিতায় তিনি মৃত্যু পেরিয়ে দেখতে পান, বিদায় নিলেন বসন্তে, ভাষার মাসে। এও যেন এক প্রাকৃতিক সংকেত।”
(কাবিনবিহীন হাতে মহাকাশ ছুঁলেন কবি : ফারুক ওয়াসিফ, প্রথম আলো ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯)।

আতিক হেলাল

লেখক: সাংবাদিক ও সাহিত্যিক

এসএনএ


প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। গ্লোবাল টিভি লেখকের মতাদর্শ ও লেখার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত মতামতের সঙ্গে গ্লোবাল টিভি-এর সম্পাদকীয় নীতির মিল না-ও থাকতে পারে।
oranjee