ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

নারী নির্যাতন আইনে সংস্কার ও পুরুষ নির্যাতন আইন করা জরুরি

গ্লোবালটিভিবিডি ২:১৬ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ০৬, ২০১৯

মুরাদ নূর : মানুষের জন্ম ডিম বা কুড়ি থেকে নয়, একজন নারী থেকেই নারী পুরুষের জন্ম হয়। সেই মমতা, শ্রদ্ধাবোধ থেকে নারীদের অধিকার, আইন একটু বেশিই থাকবে এটাই স্বাভাবিক। একজন নারীর কল্যাণেই মানবজাতির পৃথিবী দেখা। নারীতে'ই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সৌন্দর্য। এমন আবেগের মূল্যায়ন পুরুষকে অসম্মান করে করা যায় না। পুরুষবিহীন একজন নারী বড়ই অসহায়! নারীত্ব প্রমাণ করতেই পুরুষের প্রয়োজন। সেখানে কাউকে ছোট করে, অসহায় করে কেউ বহুদূর যেতে পারে কি?

অথচ, বাংলাদেশে নারী নির্যাতন আইন অনেকটা এমন যে, কোনো নারী যে কোনো পুরুষের বিরুদ্ধে থানায় নালিশ করলে সাথে সাথেই আসামি গ্রেফতার করে, অন্য মামলাগুলোতে কিছু প্রক্রিয়াদির পরে গ্রেফতারের অর্ডার হয়। যার পুরোটা ভিন্ন নারী নির্যাতন আইনে, নারীর মিথ্যা নালিশ, পুরুষকে ফাঁসানোর জন্য করলেও তদন্তের আগেই পুরুষ অপরাধী। মামলার গতিতে দেখি বেশিরভাগই কিছুদিন পর আসামি ছাড়া পেয়ে যায়। নারীটির সাথে পুরুষটির আর সম্পর্ক থাকে না। তাহলে কি দাঁড়ালো ? সমাধান কি হলো ? আইনের সুফল কই ? যেখানে রাষ্ট্র বলছে নারী পুরুষ সমান অধিকার। আইন কি তা বলছে ? আইনের সঠিক প্রয়োগ হচ্ছে কি ? বাংলাদেশে জরিপ করলে দেখা যাবে ৮০ শতাংশ পুরুষ নারীদের নির্যাতনের স্বীকার কোনো না কোনোভাবে। আর্থিক, সামাজিক, মানসিক, পারিবারিক ও শারীরিক বিভিন্নভাবে পুরুষ নিঃশেষ হয়। যেখানে বিধাতা ছাড়া পুরুষদের নালিশ করারই জায়গা নাই।

* এই ধরনের মামলায় তদন্তের আগ পর্যন্ত বাদী বিবাদী দু'জনকেই গ্রেফতার করা উচিত।
* গ্রেফতারের আগে অবশ্যই উভয়ের বলাটা মন দিয়ে শুনা উচিত।
* দোষীকে নজিরবিহীন ভয়াবহ শাস্তি দিয়ে নিরপরাধকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেয়া উচিত।

আইনে সমতা আনলে হয়তো হয়রানি বন্ধ হয়ে নারী পুরুষ সমানে সমানে সুন্দরের জন্য সামনে আগাবে। সুন্দরের আলোতে চকচক করবে, হাসবে বাংলাদেশ।


লেখক : সুরকার ও সংস্কৃতিকর্মী


oranjee