ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৫ কার্তিক ১৪২৬

 
 
 
 

কুষ্টিয়ায় কুমারখালী-যদুবয়রা সংযোগ সেতুর ভিত্তি স্থাপন করলেন হানিফ

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

ছবি সংগৃহীত

কাজী সাইফুল: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ পেট্রোল দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করার গণতন্ত্র দেখতে চায় না। গণতন্ত্রের দোহাই দিয়ে দিয়ে পার পাওয়ার সুযোগ নেই, বাংলাদেশের মানুষ উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেয়।

তিনি কুষ্টিয়ার কুমারখালী পৌর বাস টার্মিনালে গড়াই নদীর ওপর শহীদ গোলাম কিবরিয়া কুমারখালী-যদুবয়রা সংযোগ সেতুর উদ্বোধনী জনসভায় রবিবার এসব কথা বলেন।

কুমারখালী উপজেলা চেয়ারম্যান ও কুমারখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান খানের সভাপতিত্বে মাহবুব উল আলম হানিফ আরও বলেন, মির্জা ফকরুল ঈর্ষায় কাতর হয়ে সরকারের উন্নয়ন চোখে দেখছেন না। উন্নয়ন দেখতে হলে তাকে কুষ্টিয়া আসতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমরা সবাইকে সাথে নিয়ে একসাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে চাই।

সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী- খোকসা) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম জর্জ।
বিশেষ অতিথি ছিলেন- কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আ. ক. ম. সরওয়ার জাহান বাদশাহ্, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, কুষ্টিয়া জেলা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী।

এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কুমারখালী পৌরসভার মেয়র ও কুমারখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শামছুজ্জামান অরুন।

এর আগে কুমারখালী শেরকান্দিতে শহীদ গোলাম কিবরিয়া কুমারখালী-যদুবয়রা সংযোগ সেতুর ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

গড়াই নদীর ওপর নির্মিত শহীদ গোলাম কিবরিয়া কুমারখালী-যদুবয়রা সংযোগ সেতুর নির্মাণ বাস্তবায়নকারী সংস্থা হিসেবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর কুষ্টিয়া কাজ করছে। ৮৯ কোটি ৯১ লক্ষ ৩৫ হাজার ৫৯১ টাকা ব্যায়ে ৬৫০ মিটার দৈঘ্য পিসি গার্ডার সেতুটি ওয়াকওয়েসহ ৯ দশমিক ৮০ মিটার চওড়া করা হবে। এ ছাড়াও সেতুটির দুই পাড়ে মোট ৮০০ মিটার দৈঘ্য এপ্রোচ সড়ক নির্মাণ করা হবে। নেশনটেক কমিউনিকেশন লিমিটেড ও রানা বিল্ডার্স যৌথভাবে সেতুটির নির্মাণ কাজ করছে। গত ১৭ এপ্রিল ২০১৯ কাজের ওয়ার্ক অর্ডার পেয়ে ইতোমধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান টেস্ট পাইলিংয়ের কাজ শুরু করেছে। আগামী ২০২১ সালের ২৫ অক্টোবর সেতুটির নির্মাণ কাজ সমাপ্তির কথা রয়েছে।

গড়াই নদীর ওপর এ সেতুটি নির্মিত হলে কুমারখালী উপজেলার সাথে মাগুরা, ঝিনাইদহ জেলার দূরত্ব কমে যাবে। এছাড়ও গড়াই নদীতে বিভক্ত কুমারখালীর পাঁচ ইউনিয়নের মানুষের দীর্ঘ দিনের দূর্ভোগ লাঘব হবে।

এএইচ


oranjee