ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

নুসরাত হত্যা: ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রমাণ পেয়েছে পিবিআই

গ্লোবালটিভিবিডি ৬:৫২ অপরাহ্ণ, মে ২৬, ২০১৯

ফাইল ছবি

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যায় সোনাগাজী মডেল থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

রোববার তদন্ত শেষে সাইবার আদালতে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলার প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেছেন পিবিআই সদর দপ্তরের সিনিয়র এএসপি রিমা সুলতানা।

রিমা সুলতানা বলেন, প্রতিবেদনে মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে অপেশাদার আচরণের প্রমাণ মিলেছে। পাশাপাশি ওসির মোবাইল থেকেই ধারণ করা ভিডিও ছড়িয়ে দিয়ে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘনের সত্যতা পাবার কথাও উল্লেখ করা হয়।

নুসরাত জাহানের আনা যৌন হয়রানির অভিযোগ ভিডিওতে ধারণ এবং তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ১৫ এপ্রিল মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সায়েদুল হক। মামলাটি পিবিআইকে তদন্ত করার নির্দেশ দেন আদালত।

পিবিআই সূত্র জানায়, গত ২৫ এপ্রিল সোনাগাজী থানা ভবনে ২৭ মার্চের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখেন আট সদস্যের তদন্ত দলের আট সদস্যের তদন্ত দল। এই দলের নেতৃত্ব দেন পিবিআইয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার রিমা সুলতানা। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গেও কথা বলেছেন তারা। মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহানের আনা যৌন হয়রানির অভিযোগ ভিডিওতে গত ২৭ মার্চ ধারণ করেছিলেন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন। সেদিন নুসরাতকে নেকাব খুলতে বাধ্য করা এবং কিছু আপত্তিকর প্রশ্ন করেছিলেন ওসি। এ সম্পর্কে ওসিকে সেই দিন জেরা করে পিবিআইয়ের তদন্ত দল। কিন্তু ওসি ফেসবুকে ওই ভিডিও ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। তবে ভিডিওতে নুসরাতের সঙ্গে পুরুষ কণ্ঠ যে তার, তা তিনি অস্বীকার করেননি।

গত ২৭ মার্চ সোনাগাজীর ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষের কক্ষে নুসরাতকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ ওঠে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার বিরুদ্ধে। এরপর নুসরাতের মা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই দিন ওসি নুসরাতকে থানা ভবনে ডেকে নিয়ে তার বক্তব্য মুঠোফোনে রেকর্ড করেন, যা ৮ এপ্রিল কিছু টিভি চ্যানেলে প্রচার হয়। পরে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

এমএস


oranjee