ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

 
 
 
 

গ্লোবাল টিভি অ্যাপস

বিষয় :

ঢাকা

  • সেই ৫২টি নিম্নমানের পণ্যের লাইসেন্স বাতিল করলো বিএসটিআই
  • রাজধানীতে অপহরণ ও মুক্তিপণ মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ড
  • কবি হেনরী স্বপনের জামিন লাভ
  • প্রাণের ৩টিসহ ৭ পণ্যের লাইসেন্স বাতিল: স্থগিত ১৮টির
  • আইনজীবী ইমতিয়াজ মাহমুদ গ্রেফতার
  • স্বাস্থ্যই যদি ঠিক না থাকে তাহলে জাতি আগাবে কীভাবে:হাইকোর্ট
  • এবার ৩২ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা

অভিজিৎ রায় হত্যা: ৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

গ্লোবালটিভিবিডি ২:১১ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৫, ২০১৯

লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়। ছবি: সংগৃহীত

লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যা মামলায় ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। সেই সাথে ১৫ জনকে মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিটিটিসির পরিদর্শক মনিরুল ইসলাম বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারীর আদালতে এ অভিযোগপত্র জমা দেন।

মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য ২৫ মার্চ দিন ধার্য করেছে আদালত। মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে ৩৪ জনকে।

আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক নিজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

যে ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়া হয়েছে তারা হলেন- সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক ওরফে মেজর (চাকরিচ্যুত) জিয়া, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন (সাংগঠনিক নাম শাহরিয়ার), আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, আকরাম হোসেন ওরফে আবির, মো. মুকুল রানা ওরফে শরিফুল ইসলাম ওরফে হাদী, মো. আরাফাত রহমান ও শফিউর রহমান ফারাবি। তাদের মধ্যে জিয়া ও আকরাম পলাতক রয়েছেন।

যে ১৫ জনকে অব্যাহতি দেয়ার আবেদন করা হয়েছে তারা হলেন- সাদেক আলী ওরফে মিঠু, মোহাম্মদ তৌহিদুর রহমান, আমিনুল মল্লিক, জাফরান হাসান, জুলহাস বিশ্বাস, আব্দুর সবুর ওরফে রাজু সাদ, মাইনুল হাসান শামীম, মান্না ইয়াহিয়া ওরফে মান্নান রাহি, আবুল বাশার, মকুল রানা, সেলিম, হাসান, আলী ওরফে খলিল, অনিক ও অন্তু।

মিঠু, তৌহিদুর, আমিনুল, জাফরান হাসান, জুলহাস, সবুর ও মাইনুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় অব্যাহতির আবেদন করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। মান্না ইয়াহিয়া ও আবুল বাশার চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যান। মকুল রানা খিলগাঁও এলাকায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। অপর পাঁচজন সেলিম, হাসান, আলী, অনিক ও অন্তের পুরো নাম-ঠিকানা না পাওয়ায় তাদের অব্যাহতির আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এমএস


oranjee