ঢাকা, সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

অবশেষে মহারাষ্ট্রে জারি হল রাষ্ট্রপতির শাসন

গ্লোবালটিভিবিডি ১০:৩৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯

ছবি সংগৃহীত

সব জল্পনা ও কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ভারতের মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতির শাসন করা হয়েছে। অন্যদিকে সরকার গঠনের জন্য মাত্র একদিন সময় দেয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে রাজ্যের দ্বিতীয় বৃহত্তম দল শিবসেনা। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারের।

মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনের পর কোনও দল সরকার গঠন করতে না পারায় সাংবিধানিকভাবে প্রথমে কেন্দ্রকে রাষ্ট্রপতি শাসনের সুপারিশ করেন রাজ্যপাল ভগৎ সিংহ কেশিয়ারি। এরপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জরুরি ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকেন। এই বৈঠকে রাষ্ট্রপতির শাসনের পক্ষে সমর্থন দিয়ে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করতে রাষ্ট্রপতিকে সুপারিশ করে মন্ত্রিসভা। দেশটির রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিটিতে সই করার পর সাংবিধানিকভাবে মহারাষ্ট্রে ৩৫৬ ধারা অর্থাৎ রাষ্ট্রপতির শাসন কার্যকর হয়।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদ সংস্থা এএনআই জানায়, মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল গত ১৫ দিন ধরে আলোচনা করেছেন। কিন্তু কোনও দল সরকার গঠন করতে পারেনি। তাই রাষ্ট্রপতির শাসনই সবচেয়ে ভালো বিকল্প বলে মনে করেছেন রাজ্যপাল।

এর আগে বিজেপি দাবি না জানানোয় শিবসেনাকে সরকার গঠনের আহ্বান করেন কেশিয়ারি। দলটির সময় ছিল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে আটটা পর্যন্ত। কিন্তু এর মধ্যে প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিধায়কের সমর্থনপত্র দিতে না পারায় ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টিকে (এনসিপি) ডাকেন তিনি।

এনসিপির সময় ছিল মঙ্গলবার রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত। কিন্তু এর আগেই মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি হয়ে গেলো। আর এটি নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা। তারা  বলেন এনসিপির সরকার গঠনের সময় এবং কংগ্রেস ও শিবসেনার আলোচনা শেষ হওয়ার আগেই কেন রাষ্ট্রপতির শাসন জারি করা হলো?

আরকে


oranjee