ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬

 
 
 
 

বাংলাদেশে পর্তুগালের কনস্যুলার সার্ভিস চালুর ঘোষণা

গ্লোবালটিভিবিডি ১:০০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৫, ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

মিসবাহ উদ্দিন লিসবন,পর্তুগাল : পর্তুগাল সরকারের বর্তমান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ডঃ জোসে লুইস কারনেইরো, বাংলাদেশে পর্তুগালের কনস্যুলার সার্ভিস চালুর ঘোষণা দেন। ভারতের নয়াদিল্লিতে অবস্থিত পর্তুগিজ দূতাবাসে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন বাংলাদেশিরা। পর্তুগিজ দূতাবাসে কর্মরত স্থানীয় ভারতীয় কনস্যুলারদের বাংলাদেশি সেবাগ্রাহীদের প্রতি বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগসহ দিল্লির দূতাবাসে গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রাদি সত্যায়িত করতে ও ভিসা সংক্রান্ত বিষয়গুলোতে তীব্র হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ পর্তুগালে বিভিন্ন ভিসার জন্য আবেদনকারী বাংলাদেশিদের।

বাংলাদেশে পর্তুগালের স্থায়ী দূতাবাস না থাকার কারণে কনস্যুলারের বিভিন্ন সেবা পেতে ও ভিসা সংক্রান্ত বিষয়ে বাংলাদেশিদের দিল্লী যাতায়াত করতে হয়। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী ভোগান্তির শিকার হোন পর্তুগালে বসবাসরত বাংলাদেশিরা। পরিবারের সদস্যদের পর্তুগালের পারিবারিক ভিসার আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রের সত্যায়ন করতে গিয়ে তারা বেশ হয়রানির শিকার হচ্ছেন সেখানে।

দিল্লীর পর্তুগিজ দূতাবাসে হয়রানির অভিযোগ পুরনো। দীর্ঘ সময় পেরিয়েও কোনো উপর্যুপরি সমাধান দৃশ্যমান না হওয়ায় পর্তুগালে অভিবাসন হাইকমিশনের নিবন্ধিত সংগঠন বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পোর্তো’র পক্ষ থেকে পর্তুগিজ সরকারের উচ্চ পদস্থ নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনার উদ্যোগ নেয়া হয়। যার নেতৃত্ব দেন পর্তুগালে মূলধারার রাজনীতিতে সম্পৃক্ত বাংলাদেশি শাহ আলম কাজল।

বাংলাদেশিদের সমস্যাগুলো নিয়ে তৃতীয় বারের মতো ধারাবাহিক আলোচনায় পোর্তো শহরের একটি রেস্টুরেন্টে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জোসে লুইস কার্নেইরো সহ অংশ নেন পর্তুগালের পরিবেশ মন্ত্রী জোয়াও পেদ্রো মাতোস ফার্নান্দেজ, সদ্য বিদায়ী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্তুগিজ সংসদের সামাজিক নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা থিয়াগো বারবোজা রিবেইরো সহ পর্তুগালের ক্ষমতাসীন দল স্যোসালিষ্ট পার্টির ১৫ জন সংসদ সদস্য। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পোর্তোর সভাপতি শাহ আলম কাজল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম, প্রধান উপদেষ্টা মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।

বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পোর্তোর নেতৃবৃন্দরা পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর কাছে ভোগান্তির শিকার ভূক্তভোগীদের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। আগের আলোচনার প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ইতোমধ্যেই, দিল্লীর পর্তুগিজ দূতাবাসে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের সাথে কথা বলেছেন বলে জানান। মন্ত্রী রাষ্ট্রদূতকে ঢাকায় কনস্যুলার সেবা প্রদানের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। অন্তত, মাসে একবার করে হলেও যেন সেখানে কনস্যুলার সেবা প্রদান করা হয়। রাষ্ট্রদূত খুব শীঘ্রই পর্তুগিজ কনস্যুলেট ঢাকার সাথে আলোচনা শেষ করে সেবাটি চালু করার উদ্যোগ নিবেন বলে জানান।

এছাড়াও বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন ভিসা জমা নেয়া ও পারিবারিক বিভিন্ন ভিসার ইন্টারভিউ ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সে স্কাইপের মাধ্যমে করার কথা বলা হয়েছে। এতে করে আবেদনকারীদের আর দিল্লী যেতে হবে না। সেবাটি চালু হলে গুরুত্বপূর্ণ কাগজ পত্রাদি সত্যায়ন করা ও জমা দেয়া যাবে ঢাকার পর্তুগিজ কনস্যুলেটে।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ড. জোসে লুইস কারনেইরো তার বক্তব্যে বলেন, চলতি বছর পর্তুগিজ সরকারের একটি বিশেষ প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সফরে গিয়েছিলো। পর্তুগাল ও বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়ন, কনস্যুলার অফিস নিয়ে আলোচনা সব বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। অনুষ্ঠানে সেই প্রতিনিধি দলের সংসদ সদস্য জোয়ানা লিমা উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী বলেন, আমরা ইতিমধ্যেই ঢাকায় কনস্যুলার সার্ভিস দেয়ার ব্যাপারে কাজ শুরু করেছি, সেই সাথে বিশেষ আধুনিক প্রযুক্তি স্কাইপের কিংবা অন্য কোন প্রযুক্তি মাধ্যমের ভিসা প্রদানের সাক্ষাৎকারের পরীক্ষামূলক কাজ চলমান। তবে না বললেই নয় ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অনেকেই নকল সনদ ও সার্টিফিকেট জমা করে থাকে যা আমাদের তদন্তে বের হয়ে এসেছে- যা খুবই দুঃখজনক। তবে আমি আজ আপনাদের বলছি, দ্রুত বাংলাদেশে পর্তুগালের কনস্যুলার সার্ভিস চালু হবে।

সমস্যা গুলোর সমাধানে এর আগে পর্তুগালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আগুস্তো সান্তোস সিলভার সাথেও বৈঠক করে বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পোর্তো। এবারের বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর আশ্বাসের ফলে বেশ আশাবাদী বাংলাদেশ কমিউনিটি অব পোর্তোর নেতৃবৃন্দ।

এমইউ/আরকে

 


oranjee