ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

 
 
 
 

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারকে বাধ্য করার ব্যবস্থা নিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

গ্লোবালটিভিবিডি ৬:০৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৯

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংগৃহীত ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মিয়ানমার থেকে বাস্তচ্যুত হয়ে আসা রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের জন্য সমস্যা। এ সঙ্কট সৃষ্টি করেছে মিয়ানমার। দেশটির অসহযোগিতার কারণে সৃষ্ট রোহিঙ্গা সঙ্কট এখন বাংলাদেশের উন্নয়নকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে।

যুক্তরাস্ট্রের নিউইয়র্কে স্থানীয় সময় বুধবার জাতিসংঘে মার্কিন থিংক ট্যাংক ‘কাউন্সিল অন ফরেইন রিলেশনস’ আয়োজিত ‘এ কনভারসেশন উইথ প্রাইম মিনিস্টার শেখ হাসিনা’ শীর্ষক এক সংলাপে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপদে, মর্যাদার সঙ্গে ও স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের পরিবেশ তৈরি করতে মিয়ানমারকে বাধ্য করার ব্যবস্থা নিতে হবে বিশ্ব সম্প্রদায়কে। এজন্য তিনি সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

এসময় সন্ত্রাস, চরমপন্থা ও সংঘাত বন্ধে চার দফা পদক্ষেপ নেওয়ারও প্রস্তাব করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কট এখন বাংলাদেশের জন্য উদ্বেগজনক ও চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরিকল্পিত নৃশংসতার মধ্য দিয়ে মিয়ানমার সরকার তাদের রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা সংখ্যালঘুদের নিধন করছে। সহিংসতা ও নৃশংসতা থেকে রক্ষা পেতে রোহিঙ্গারা দেশ ছেড়ে পালিয়ে এসেছে। বিষয়টি মানবিক হওয়ায় বিবেচনা করেই আমরা তাদের আশ্রয় দিয়েছি। বাংলাদেশ দ্রুত ও শান্তিপূর্ণভাবে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান চায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সাধ্যমত রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, চীন ও যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে বাংলাদেশকে বিশেষভাবে সহায়তা করছে।

তিনি বাংলাদেশে রোহিঙ্গা সঙ্কটের গভীরতা স্বচক্ষে দেখার জন্য বিশ্ব সম্প্রদায়কে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে আসার আহ্বান জানান। ১৯৮২ সালে মিয়ানমার সংবিধান পরিবর্তন করে রোহিঙ্গাদের কীভাবে নাগরিকত্বের অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে, সে বিষয়টি উপস্থিত বিশ্ব নেতাদের কাছে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

সংলাপে প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা সঙ্কট ছাড়াও সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবেলায় নেওয়া উদ্যোগগুলোর তুলে ধরেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সি, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, পরিবেশ বন ও জলবাযু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দনি, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, যুক্রাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত এম জিয়া উদ্দীন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ ও সিআরএফ’র প্রেসিডেন্ট রিচার্ড এন হ্যাস প্রমুখ।

এএইচ/এমএস


oranjee