ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

অঞ্জু ঘোষের নাগরিকত্ব নিয়ে নতুন বিতর্ক

গ্লোবালটিভিবিডি ৪:৪৫ অপরাহ্ণ, জুন ০৯, ২০১৯

সংগৃহীত ছবি

একসময়ের জনপ্রিয় বাংলা সিনেমা ‘বেদের মেয়ে জোৎস্না’র নায়িকা অঞ্জু ঘোষ কট্টর হিন্দুত্ববাদী দল ভারতীয় জনতা পার্টিতে (বিজেপি) যোগ দেওয়ার পরই কলকাতার রাজনীতিতে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। বাংলাদেশি অভিনেত্রী হয়েও কী করে তিনি ভারতীয় জনতা পার্টির সদস্য হলেন সেই প্রশ্ন তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

অঞ্জু ঘোষ আদৌ ভারতীয় নাগরিক কিনা তা নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। অন্যদিকে বিজেপির দাবি, জন্মসূত্রে অঞ্জু ঘোষ ভারতীয় নাগরিক এবং তার জন্মসনদ, ভারতীয় পাসপোর্ট এবং ভোটার কার্ড রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে অঞ্জুর পক্ষে একাধিক নথি পেশ করে বিজেপি। কিন্তু সেই নথিতে একাধিক অসঙ্গতি দেখা গেছে।

সংবাদ সম্মেলনে অঞ্জুর জন্ম সনদ, ভোটার কার্ড, প্যান কার্ড, আধার কার্ড এবং পাসপোর্টের কপি দাবি করে, তিনি ভারতীয়।

অঞ্জুর দাবি ১৯৬৬ সালে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তার জন্ম। এর পক্ষে বিজেপি পেশ করেছে ২০০৩ সালে কলকাতা পৌরসভার থেকে প্রকাশিত তার জন্মের প্রশংসাপত্র। তবে অনলাইনে অঞ্জুর জন্মের প্রশংসাপত্রের রেজিস্ট্রেশন নম্বরের সঙ্গে কর্পোরেশনের রেজিস্ট্রেশন নম্বরে গরমিল দেখা গেছে। একই নামে দু’টি রেজিস্ট্রেশনও পাওয়া গেছে।

প্রশ্ন উঠছে, ১৯৬৬ সালে যার জন্ম, তার জন্মের প্রশংসাপত্র ২০০৩ সালে দেয়া হল কেন? এখানেই শেষ নয়। বাংলাদেশের একাধিক গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে অঞ্জু বাংলাদেশকেই ‘মাতৃভূমি’ বলে দাবি করেন। এমনকি, একটি সাক্ষাৎকারে সাংবাদিকের ভুল শুধরে তিনি বলেন, ‘আমার জন্ম কিন্তু চট্টগ্রামে নয়, ফরিদপুরে। তবে বেড়ে ওঠা চট্টগ্রামে।’

অঞ্জুর যে পাসপোর্ট দেখানো হয়েছে, সেটির মেয়াদ শুরুর তারিখ ২০১৮ সালে। যে অভিনেত্রী দীর্ঘদিন বাংলাদেশ এবং ভারতে অভিনয় করেছেন, তার পাসপোর্ট ২০১৮ সালের হয় কী করে? বিজেপির দাবি, এটি তার শেষ জারি হওয়া পাসপোর্ট। প্রশ্ন উঠছে, তা হলে প্রথম পাসপোর্টের তথ্য কোথায়? যদি তিনি নাগরিকত্ব বদলে থাকেন, তা হলে কলকাতার জন্মের প্রশংসাপত্র আসে কোথা থেকে?

বিজেপি তার যে ভোটার কার্ড দাখিল করেছে, সেটি ইস্যুর তারিখ ২০০২ সাল। অঞ্জু যদি ভারতেরই নাগরিক হবেন, তা হলে ভোটার কার্ড পেতে এত সময় লাগল কেন?

তার যে প্যান কার্ড দেয়া হয়েছে, সেখানে আবার জন্ম সাল ১৯৬৭। প্রশ্ন উঠছে, এক এক জায়গায় তার এক এক রকম জন্মের তারিখ কেন?

ঢাকায় ভারতের হাই কমিশনের সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশি নায়িকার ভারতীয় নাগরিকত্বের বিষয়ে তাদের কিছু জানা নেই।

কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘দেশের মানুষ আর বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না। তাই বাংলাদেশ থেকে লোক নিয়ে আসতে হচ্ছে বিজেপিকে। এটি সম্পূর্ণ অবৈধ।’

প্রসঙ্গত, অঞ্জু ঘোষ বাংলাদেশি অভিনেত্রী হিসাবেই পরিচিত। এমন কি তার অভিনীত অধিকাংশ চলচ্চিত্রই বাংলাদেশের। এর মধ্যে রয়েছে ‘বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না’। যদিও ওই চলচ্চিত্রটি দুই বাংলাতেই সমান দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করেছিল।

এমএস


oranjee