ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

জীবনে কিছু নিয়ম মেনে চলুন, সুখে থাকুন

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:১৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৭, ২০১৯

ছবি : ইন্টারনেট

সুস্থ থাকতে সবাইকেই হতে হবে সচেতন, প্রতিদিন মেনে চলতে হবে কিছু নিয়ম। তাহলেই থাকবেন সুস্থ এবং হবেন সুন্দর দেহের অধিকারী। চলুন জেনে নেই সুন্দর জীবন ও সুস্থ থাকার কিছু নিয়মাবলী-

১. প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট হাঁটুন এবং হাসিমুখে হাঁটুন।

২. অন্তত ১০ মিনিটের জন্য হলেও নীরবতা পালন করুন।

৩. প্রত্যুষে ঘুম থেকে উঠে আপনার সাফল্য ও উন্নতির জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করুন।

৪. সেইসব খাবার গ্রহণ করুন, যা বৃক্ষে বেড়ে ওঠে এবং মেশিনে তৈরি করা খাবার কম গ্রহণ করুন।

৫. সবুজ চা ও প্রাকৃতিক পানি পান করুন। বিলবেরী, ব্রোকলী, কাজুবাদাম নিয়মিত খান।

৬. প্রতিদিন অন্তত ৩ জন মানুষকে হাসতে সহায়তা করুন।

৭. আপনার মূল্যবান সময় অযথা গালগল্পে নষ্ট করবেন না। পুরনো অপ্রয়োজনীয় কাসুন্দি ঘাঁটবেন না। যেসব বিষয়ে আপনার আত্মনিয়ন্ত্রণ নেই, সেসব বিষয় এড়িয়ে চলুন।

৮. সকালের নাস্তা করুন রাজার মতো, দুপুরের খাবার খান রাজপুত্রের মতো এবং রাতের খাবার খান কাঙালের মতো।

৯. জীবনটা সর্বাঙ্গ সুন্দর না হলেও এটাকে ভালো রাখার চেষ্টা করুন।

১০. জীবনটা খুবই ছোটো, তাই অন্যকে ঘৃণা করে সময় নষ্ট করবেন না। সহজে ক্ষমা করে মহত্ত্বের পরিচয় দিন।

১১. আপনি নিজেকে খুব সিরিয়াসলি নেবেন না, অন্যরা যেভাবেই নিক না কেন।

১২. আপনাকে সব বিতর্কে জিততেই হবে, তেমনটি ভাববেন না। কিছু মেনে নেয়ার মানসিকতাও তৈরি করুন।

১৩. অতীতের বিষয়ে শান্ত থাকুন, যেন অতীত বর্তমানকে নষ্ট করে দিতে না পারে।

১৪. নিজেকে অন্যদের সাথে তুলনা করবেন না। অন্যদের জীবন সম্পর্কে আপনার পুরো ধারণা নাও থাকতে পারে।

১৫. মনে রাখবেন, আপনি ছাড়া আপনার সুখের বড় অংশীদার আর কেউ না।

১৬. যেকোনো দুর্যোগপূর্ণ সময়কে বলুন, ‘আগামি ৫ বছর কি এই অবস্থা থাকবে?’

১৭. অভাবগ্রস্তকে সাহায্য করুন। প্রদানকারী হোন, গ্রহণকারী নয়।

১৮. অন্যরা আপনার সম্পর্কে কী চিন্তা করে, সেটাকে বড় করে দেখবেন না।

১৯. সময় সবকিছুকেই নিরাময় করতে পারে।

২০. ভালো বা মন্দ-যেকোনো অবস্থাকেই আপনি পরিবর্তন করতে পারেন।

২১. আপনার চাকরি আপনার অসুস্থতার সময় আপনার সেবা করবে না। আপনার বন্ধুরাই আপনার কাছে থাকবে।

২২. বিদ্বেষ হচ্ছে সময়ের অপচয় মাত্র। এটাকে বর্জন করলে আপনি আপনার সব প্রয়োজন মেটাতে সক্ষম হবেন।

২৩. প্রতি রাতে ঘুমানোর আগে সৃষ্টিকর্তার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করুন আজকের দিনটির সকল প্রাপ্তির জন্য।

২৪. মনে রাখবেন, আপনার জন্য যতটা কষ্ট, ততটা আনন্দও রয়েছে।

২৫. আপনার বন্ধুদের মধ্যে এগুলো শেয়ার করুন, যাতে তারাও এগুলোর সুফল পেতে পারে।

 

এএইচ/এমএস


oranjee