ঢাকা, শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

 
 
 
 

ঝলমলে চুলের জন্য...

গ্লোবালটিভিবিডি ৮:০৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৮

সংগৃহীত ছবি

শীতকালে ঠান্ডা ঠান্ডা আবহাওয়া চুলে ফেলে। দিনে রোদ, সঙ্গে যোগ হয় ধুলা ও ময়লা। এই সময় ঝলমলে চুলের গাইডলাইন দিয়েছেন বিন্দিয়া বিউটি স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন কচি। 

এই আবহাওয়ায় চুল অনেক বেশি শুষ্ক হয়ে যায়। চুল ঝরা ও খুশকির প্রবণতা বেড়ে যায় অনেকাংশে। চুল পরিষ্কার রাখা তাই জরুরি। সপ্তাহে তিন দিন রাতে হট অয়েল ম্যাসাজ করতে হবে। সাধারণ নারকেল তেলের বদলে হারবাল অয়েল বেশি কার্যকর। আধা কেজি নারকেল তেলের সঙ্গে ২ টেবিল চামচ মেথি, একমুঠ মেহেদিপাতা, কয়েকটি আমলকী থেঁতো করে মিশিয়ে নিন। অল্প আঁচে চুলায় রাখুন আধা ঘণ্টা। ঠাণ্ডা হলে ছেঁকে কাচের বোতলে ভরে নিন। রাতে এই তেল অল্প গরম করে স্কাল্প থেকে চুলের আগা পর্যন্ত লাগান। সারা রাত রেখে সকালে শ্যাম্পু করে ফেলুন। প্রতিদিন বাইরে যেতে না হলে একদিন পরপর শ্যাম্পু করা যেতে পারে। শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার লাগাতে হবে। চুলের গোড়ার অংশটুকু বাদ দিয়ে পুরো চুলে কন্ডিশনার লাগান। ২ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

সমস্যা সমাধান

খুশকির উপদ্রব কমাতে পেঁয়াজের রসের সঙ্গে সমপরিমাণ লেবুর রস ও সরিষার তেল মিশিয়ে মাথার ত্বকে লাগান। আধা ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিন। খুশকি বেশি হলে সপ্তাহে দুই দিন আর কম হলে এক দিন লাগাতে হবে। প্রতিদিন কিছু চুল ঝরে পড়বে এবং নতুন চুল গজাবে—এটা প্রাকৃতিক নিয়ম। স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি চুল পড়লে খানিকটা বাড়তি মনোযোগ দিতে হবে। সপ্তাহে এক দিন আধা কাপ নারকেলের দুধের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ লেবুর রস ও এক টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। তুলার বল দিয়ে চুলের গোড়ায় ঘষে ঘষে লাগান। ৪০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। নতুন চুল গজানোর জন্য মেথি গুঁড়ার সঙ্গে পেঁয়াজের রস ও টক দই মিশিয়ে মাথায় লাগান। নিয়মিত ব্যবহারে ভালো ফল মিলবে।

বিশেষ যত্ন

সপ্তাহে এক দিন একটা পাকা কলার সঙ্গে আধা কাপ টক দই, মধু আর লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে পেস্ট করে নিন। চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত ভালো করে লাগিয়ে শাওয়ার ক্যাপ পরে নিন। ২০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। শীতে চুলের জন্য ময়েশ্চারাইজারসমৃদ্ধ শ্যাম্পু বেছে নিন।

খাবারদাবার

রুক্ষ আবহাওয়া বিভিন্ন সমস্যা তৈরি করলেও সব সমস্যার সমাধান রয়েছে শীতের সবজিতে। শীতের মৌসুমি সবুজ শাক ও রঙিন সবজিতে পাবেন আয়রন এবং চুলের জন্য উপকারী ভিটামিন ও মিনারেলস। পালংশাক, গাজর, মিষ্টি কুমড়া, শিমের বিচি, টমেটোসহ সব ধরনের রঙিন শাকসবজি রাখুন প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায়। আয়রন, ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ‘সি’ চুলের সুস্বাস্থ্যের জন্য জরুরি। প্রতিদিন একটি টক ফল আর এক গ্লাস দুধ চুলের পূর্ণ পুষ্টি নিশ্চিত করবে। ওবেসিটি বা বাড়তি ওজনের সমস্যা থাকলে ফ্যাটফ্রি বা ননি ছাড়া দুধ খেতে পারেন। ননি ছাড়া দুধে ক্যালসিয়াম সঠিক মাত্রায় থাকে।

সৌজন্য: কালের কণ্ঠ 

এসএনএ


oranjee