ঢাকা, রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

 
 
 
 

তিউনিশিয়া থেকে দেশে ফিরছেন আরো ২৪ বাংলাদেশি

গ্লোবালটিভিবিডি ১:৪৯ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৯

ছবি : ইন্টারনেট

তিউনিশিয়ায় ভূমধ্যসাগর থেকে উদ্ধার হওয়া ৬৪ বাংলাদেশির মধ্যে তৃতীয় ধাপে দেশে ফিরছেন আরও ২৪ জন।

বুধবার (২৬ জুন) বিকেল সোয়া ৫টার দিকে, কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিমানে দেশে ফিরছেন তারা।

এর আগে, আরও দুই ধাপে ৩২ জনকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। এখন এই ২৪ জন ফিরলে মোট সংখ্যা দাঁড়াবে ৫৬ জনে। বাকি ৮ জন দেশে ফিরতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তবে, তাদেরকেও ফেরত পাঠাতে তিউনিশিয়া ও আইওএম এর সাথে যোগাযোগ করছেন লিবিয়ার বাংলাদেশি দূতাবাস।

উদ্ধার হওয়া ৬৪ জনের মধ্যে মাদারীপুরের ২৬ জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১৫ জন, সিলেট জেলার ৮ জন, শরীয়তপুরের ৩ জন, মৌলভীবাজারের ৩ জন, নোয়াখালীর ২ জন, চাঁদপুরের ১ জন, সুনামগঞ্জের ১ জন, গাজীপুরের ১ জন, ঢাকার ১ জন, নরসিংদীর ১ জন, ফরিদপুর ও টাঙ্গাইল জেলার একজন করে।

এছাড়া গত এক মাসে চার ধাপে বিভিন্ন সময়ে তিউনেশিয়া থেকে দেশে ফিরেছেন ৩৩ বাংলাদেশি, এই সংখ্যার মধ্যে ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবির ঘটনায় বেঁচে যাওয়া কর্মীরাও রয়েছেন। আর গত ১১ই জুন তিউনিশিয়া থেকে ফেরত আসা কুমিল্লার ৬ জন ছিলেন। যারা তিউনিশিয়া থেকে ব্রাজিল হয়ে আমেরিকা যাচ্ছিলেন।

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের সুত্র মতে প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে তিউনিশিয়ার সাগরে একটি নৌকায় ভাসছিলেন ৭৫ জন শরণার্থী, যাদের মধ্যে ৬৪ জনই বাংলাদেশি। নৌকাটি তিউনিশিয়ার উপকূলের কাছে পৌঁছালেও কর্তৃপক্ষ তীরে নামার অনুমতি দেয়নি।

তিউনিশিয়া কর্তৃপক্ষ জানায়, তাদের শরণার্থী কেন্দ্রে আর জায়গা দেয়া সম্ভব নয়। ফলে ওই নৌকাটি উপকূলীয় জারজিস শহর থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে সাগরে ভাসতে থাকে। পরে, বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা সেখানে যান।

এর আগে, লিবিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাস জানায় আটকে পড়া বাংলাদেশিদের দেশে ফিরিয়ে নেয়া হবে এ নিশ্চয়তা দেবার পর তিউনিশিয়ার কর্তৃপক্ষ তাদেরকে ১৮ই জুন সন্ধ্যায় জারজিস বন্দরে নামার অনুমতি দেয়। সেখান থেকে পর্যায়ক্রমে সবাইকে দেশে পাঠানো হচ্ছে।

এমএস


oranjee